অপহরণের খবর ছড়িয়ে পড়তেই তল্লাশি শুরু করে পুলিশ।

ওয়েবডেস্ক: লোকসভা নির্বাচনের পর কয়েকটি জঙ্গি হামলা ঘটনা ঘটলেও আপাত ভাবে শান্ত হতে শুরু করেছিল অঞ্চলটি। কিন্তু নতুন করে ফের ত্রস্ত হয়ে উঠেছে কাশ্মীর উপত্যকা। বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে ইন্টারনেট পরিষেবা।

তবে নতুন কোনো ঘটনা ঘটেনি, কিছু ঘটার আশংকায় আগাম সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে প্রশাসনের তরফ থেকে এই পদক্ষেপ করা হয়েছে। সোমবার জঙ্গি বুরহান ওয়ানির মৃত্যুবার্ষিকী। সেই ঘটনাকে কেন্দ্রে করে নতুন করে উত্তেজনা যাতে উপত্যকায় ছড়িয়ে না পড়ে, সেই কারণেই এই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। কাশ্মীরের মূলত চার জেলায় নিরাপত্তাব্যবস্থাকে আঁটোসাঁটো করা হয়েছে। জেলাগুলি হল কুলগাম, পুলওয়ামা, শোপিয়ান এবং অনন্তনাগ।

উল্লেখ্য, তিন বছর আগে আজকের দিনেই নিরাপত্তাবাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে অন্য দুই জঙ্গির সঙ্গে নিহত হয়েছিল হিজবুল জঙ্গি বুরহান ওয়ানি। তার পরে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে কাশ্মীর উপত্যকা। নিরাপত্তাবাহিনীকে লক্ষ্য করে পাথর ছোড়ার ঘটনা ঘটে। পাশাপাশি বাহিনীর পালটা গুলিতে মৃত্যু হয় কমপক্ষে ১০০ বাসিন্দার।

আরও পড়ুন আগরার কাছে ভয়াবহ বাস দুর্ঘটনা, মৃত অসংখ্য

ওয়ানির মৃত্যুবার্ষিকীর দিনে উপত্যকা জুড়ে বন্‌ধের ডাক দিয়েছে বিছিন্নতাবাদী সংগঠনগুলি। তবে দক্ষিণ কাশ্মীর নিয়েই সব থেকে বেশি চিন্তায় প্রশাসন। আর তাই সেখানেই জোর দেওয়া হয়েছে নিরাপত্তাব্যবস্থায়।

প্রশাসনের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, সোমবার যদি উপত্যকায় বিশেষ কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে, তা হলে মঙ্গলবারই ইন্টারনেট পরিষেবা চালু করে দেওয়া হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here