Arvind-Kejriwal

ওয়েবডেস্ক: একটা সময় ছিল, যখন উঠতে বসতে মোদীকে গাল পাড়তেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। ব্যাপারটা এমন জায়গায় পৌঁছেছিল যে গড়ে তিন দিনে অন্তত এক বার নিজের টুইটে মোদীর নাম উল্লেখ করতেন কেজরি। কখনও ব্যক্তিগত আক্রমণও ছিল তাঁর অস্ত্র। কিন্তু গত এগারো মাসে নিজেকে যেন নীরব রাজনীতিক করে তুলেছেন কেজরি।

গত এগারো মাসে নিজের টুইটে এক বারও মোদীর নাম উল্লেখ করেননি কেজরি। গত বছর মার্চের ৯ তারিখ শেষ বার মোদীর নাম উল্লেখ করে টুইট করেছিলেন তিনি। এ এক অদ্ভুত পরিবর্তন। কারণ ২০১৬-তে ১২৪ বার মোদীর নাম উল্লেখ করে টুইট করেছিলেন তিনি। অন্য দিকে ২০১৭-এর জানুয়ারি থেকে ৯ মার্চ পর্যন্ত সেই সংখ্যাটা ছিল ৩৩।

মোদীর নাম উল্লেখ করে কেজরির করা টুইটগুলির কিছু উদাহরণ হিসেবে ধরা যেতে পারে, “দিল্লিতে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করলেন মোদী”, “স্বৈরতান্ত্রিক মোদী সরকার।” মার্চে পঞ্জাব এবং গোয়ার নির্বাচন এবং দিল্লির একটি উপনির্বাচন এবং পৌরসভা নির্বাচনে আপের ভরাডুবির পরেই এই অদ্ভুত বদল এসেছে কেজরির নীতিতে।

শুধু তা-ই নয়, জানুয়ারিতে যখন কুড়িজন আপ বিধায়ককে বরখাস্ত করার সিদ্ধান্ত নিল নির্বাচন কমিশন তখনও কেজরির টুইটে খুঁজে পাওয়া যায়নি মোদীকে। কেজরি শুধু টুইটে লিখেছিলেন, কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের জন্য আপের বিধায়কদের বরখাস্ত করা হয়েছে।

কিন্তু হঠাৎ করে মোদীর নাম উল্লেখ করা বন্ধ করে দিলেন কেন কেজরি?

আপের নেতারা জানিয়েছেন, এর পেছনে পার্টিগত সিদ্ধান্ত কাজ করেছে। গত বছর দিল্লির পৌরসভা নির্বাচনে দলের ভরাডুবির পরে দলীয় বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয় আর মোদীর নাম উল্লেখ করে টুইট করা হবে না। উল্লেখ্য, দিল্লির পৌরসভা নির্বাচনে বিজেপি জিতেছে ১৮১ ওয়ার্ড। আপ যদিও দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে, তাদের সাকুল্যে মাত্র ৪৮টি ওয়ার্ড। ২০১৫-তে দিল্লি বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি এবং কংগ্রেসকে ধূলিসাৎ করার পর আপের কাছে এটা একটা বড়োসড়ো ধাক্কা ছিল।

আপের এক নেতার মতে, “এটা (মোদীকে আক্রমণ) আমাদের কোনো দিকেই নিয়ে যাচ্ছিল না। তাই আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি মোদীকে আক্রমণ না করে দিল্লির শাসনব্যবস্থার ওপরেই নজর দেওয়া হবে।” এক রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞ প্রবীণ রাইয়ের মতে, “রাজনীতিতে তিন বছর পার করার পর কেজরিওয়াল এখন অনেক বেশি পরিণত। তিনি এখন পোক্ত রাজনীতিক হওয়ার দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। ধীরে ধীরে নিজেকে আরও উন্নত করবেন তিনি।”

কেজরির এই মোদী-নীতিতে বদল দিল্লিতে আপের হারিয়ে যাওয়া জমি কতটা ফেরায় এখন সেটাই দেখার।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here