jahan-hadiya

নয়াদিল্লি: ভিন্নধর্মী দুই প্রাপ্তবয়স্ক দম্পতির বিয়ে খারিজ সংক্রান্ত যে নির্দেশ কেরল হাইকোর্ট দিয়েছে, সেই নির্দেশ নিয়েই প্রশ্ন তুলল সুপ্রিম কোর্ট। মঙ্গলবার কেরলের ‘লাভ জেহাদ’ সংক্রান্ত মামলায় শুনানি চলাকালীন এই প্রশ্ন তোলে সুপ্রিম কোর্ট।

উল্লেখ্য, গত আগস্টে এই সংক্রান্ত মামলায় এনআইএ-র তদন্তের নির্দেশ দিয়েছিল শীর্ষ আদালত। শীর্ষ আদালতের এই দিনের অবস্থান কিন্তু দেড় মাস আগের সেই অবস্থানের থেকে একশো আশি ডিগ্রি ঘুরে গেল।

গত মে মাসে হিন্দু থেকে মুসলিম ধর্ম গ্রহণ করা হাদিয়ার সঙ্গে শাফিন জাহানের বিয়েকে অবৈধ ঘোষণা করেছিল কেরল হাইকোর্ট। সেই রায়ের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টের দারস্থ হন শাফিন। এ দিন হাইকোর্টের সেই রায় নিয়েই প্রশ্ন তুলল বিচারপতি দীপক মিশ্রের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ।

এই মুহূর্তে নিজের বাবার কাছে রয়েছে হাদিয়া ওরফে অকিলা অশোকন। মানবাধিকার কর্মীদের দাবি তার ওপরে নির্যাতন চালাচ্ছে তার বাড়ির লোক। এই পরিপ্রেক্ষিতে এ দিন শীর্ষ আদালত বলেন, “২৪ বছরের এক জন যুবতীকে কোনো ভাবেই তার বাবা শাসন করতে পারে না। বড়োজোর কোনো সংস্থার হেফাজতে তাকে পাঠানো যেতে পারে।” আগস্টে এই মামলার পরিপ্রেক্ষিতে এনআইএ তদন্তের নির্দেশ দিয়েছিল তৎকালীন প্রধান বিচারপতি জেএস খেহরের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ। সেই নির্দেশের ওপরেও প্রশ্নচিহ্ন তুলে দিন সুপ্রিম কোর্ট।

অন্য দিকে হাদিয়ার বাবার দাবি সন্ত্রাসবাদী সংগঠনে জড়িয়ে ফেলার জন্য তাকে জোর করে ইসলাম ধর্মে ধর্মান্তরিত করানো হয়েছে। উল্লেখ্য, কোনো মুসলিম ছেলের সঙ্গে হিন্দু মেয়ের বিয়ে হলেই তাকে ‘লাভ জেহাদ’-এর আখ্যা দেয় কিছু হিন্দুত্ববাদী সংগঠন।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here