সুস্থ হয়ে কাজে যোগ দিতে চাইছেন কেরলের কোভিড-১৯ আক্রান্ত নার্স

ছবি: টুইটার থেকে

ওয়েবডেস্ক: কেরলের স্বাস্থ্যপরিষেবার উপর অগাধ আস্থা প্রকাশ করে রীতিমতো চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিলেন কেরলের সেই কোভিড-১৯ আক্রান্ত নার্স। হাসপাতাল থেকে বেরনোর সময় তিনি প্রতিজ্ঞা করলেন, “আমি তোমাকে হারিয়ে এক সপ্তাহের মধ্যেই ঘর থেকে বেরোব”।

কেরলের সব থেকে প্রবীণতম করোনাভাইরাস আক্রান্ত দম্পতির চিকিৎসা করার সময় নিজেই আক্রান্ত হয়ে গিয়েছিলেন ৩২ বছরের রেশমা মোহনদাস। হাসপাতালে সপ্তাহখানেক চিকিৎসার পর তাঁকে শুক্রবার কোয়ারান্টিনে পাঠানো হয়। জানা গিয়েছে, তাঁকে ১৪ দিন গৃহ-পর্যবেক্ষণে থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

হাসপাতাল থেকে বেরনোর সময় রেশমা নিজেরে প্রতিশ্রুতির কথা সাফ জানিয়ে দিয়েছেন। বলেছেন, যত দ্রুত সম্ভব তিনি নিজের কাজে ফিরতে চলেছেন। তাঁর এই দৃঢ়তার প্রশংসা করেছেন কেরলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

কেরলের পথনমঠিট্টার ৯৩ বছরের থমাস আব্রাহাম ও তাঁর ৮৮ বছরের স্ত্রী মারিয়াম করোনা আক্রান্ত হন। এই মারণ ভাইরাস ইতালি থেকে বহন করে এনেছিল তাঁর নাতিনাতনিরা। কিন্তু দেখা যায়, চিকিৎসকদের কল্পনার থেকেও দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠেছেন আব্রাহাম। সুস্থ হয়েছেন আব্রাহামের স্ত্রীও। তাঁদের চিকিৎসার কাজেই যুক্ত ছিলেন রেশমা। সেখান থেকেই সংক্রমণ। ওই প্রবীণ দম্পতির মতোই সুস্থ হয়ে উঠলেন তিনিও।

হাসপাতালের আইসোলেশনে থাকাকালীন নিজের সহকর্মীদের একটি হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে রেশমা লিখেছেন, “তোমাকে (করোনভাইরাস) হারিয়ে আমি এক সপ্তাহের মধ্যে এই ঘরটি ছেড়ে যাব”। তিনি বলেন, “আমি এই বার্তাটি হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে পোস্ট করেছি কারণ কেরলের স্বাস্থ্য ব্যবস্থার উপর আমার সম্পূর্ণ বিশ্বাস রয়েছে”।

তিনি বলেন, “রোগীদের সমস্ত রকমের যত্ন নিতে আমি পছন্দ করি। নিজেকে নিয়ে মোটেই টেনশন করি না। আমি প্রবীণদের যত্ন নেওয়ার ব্যাপারে বেশি আগ্রহী। প্রয়োজনে আইসিইউতে তাঁদের সঙ্গে কথা বলতে হয়”।

কেরলের স্বাস্থ্যমন্ত্রী কে কে শৈলজা টেলিফোনে কথা বলেন রেশমার সঙ্গে। তাঁর সুস্থ হয়ে ওঠার খবরে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, রাজ্যের এক স্বাস্থ্যকর্মীর করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবরে তিনি উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছিলেন।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.