marriage communal harmony

নয়াদিল্লি: ভিন্ন জাতের দুই প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের বিয়েতে বাধা দেওয়ার কোনো অধিকার খাপ পঞ্চায়েতগুলির নেই। এটা সম্পূর্ণ বেআইনি কাজ। এমনই মত প্রকাশ করল সুপ্রিম কোর্ট।

প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রের নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের ডিভিশন বেঞ্চ মঙ্গলবার বলে, “যদি একজন প্রাপ্তবয়স্ক পুরুষ এবং মহিলা বিয়ে করে, তা হলে কোনো সমাজ, কোনো খাপ পঞ্চায়েত তাদের বিয়ে নিয়ে প্রশ্ন তুলতে পারে না।”

পরিবারের সম্মান রাখতে খুন বা ‘অনার কিলিং’ আটকাতে ‘আমিকাস কুরি’ বা আদালতের বন্ধু রাজু রামচন্দ্রন যে প্রস্তাবগুলি দিয়েছেন, সেই প্রস্তাব দ্রুত পূরণ করার জন্য কেন্দ্রকে নির্দেশও দিয়েছে আদালত। মূলত এই ধরনের   পঞ্চায়েতগুলিকে বন্ধ করে দেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছেন রামচন্দ্রন। শীর্ষ আদালত এ দিন জানিয়ে দেয়, এই খাপ পঞ্চায়েত বন্ধ করার কোনো ব্যবস্থা না নেওয়া হলে, আদালতকেই এই ব্যাপারে হস্তক্ষেপ করতে হবে।

২০১০ সালে খাপ পঞ্চায়েতের বিরুদ্ধে শীর্ষ আদালতে একটি আবেদন করে শক্তি বাহিনী নামক একটি অ-সরকারি সংগঠন। সেই আবেদনের শুনানিতেই এই মত দিল আদালত।

উল্লেখ্য, এই আবেদনের ভিত্তিতে খাপ পঞ্চায়েতগুলিকে প্রশ্ন করা হলে উদ্ভট সব যুক্তি দিয়েছিল তারা। এক খাপ নেতা জিতেন্দ্র ছাতার বলেছিলেন, “বেশি ফাস্টফুড খেলে ভিন্ন জাতের বিয়ের প্রবণতা দেখা যায় মানুষের মধ্যে।” চাউমিন খেলে মেয়েরা ধর্ষিত হয়, এমনও মন্তব্য করেছিলেন তিনি। মেয়েরা যাতে ধর্ষিতা না হন তার জন্য তাদের বিয়ের বয়স আঠারো থেকে কমিয়ে ষোলো করার প্রস্তাব দিয়েছিলেন অন্য এক নেতা।

 

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন