rajasthan murder

ওয়েবডেস্ক: অন্য একজনকে খুন করার লক্ষ্য ছিল, আফরাজুলকে সে ভুল করে খুন করে ফেলেছে। পুলিশকে এমনই জানাল শম্ভুলাল রেগার। গত ৬ ডিসেম্বর মালদার বাসিন্দা আফরাজুলকে খুন করার অভিযোগ উঠেছে শম্ভুলালের বিরুদ্ধে।

আফরাজুলকে খুন এবং তার ভিডিও আপলোডের পরেই রাজস্থানের বিভিন্ন জায়গায় সম্প্রাদায়িক অশান্তির সৃষ্টি হয়। কোথাও কোথাও শম্ভুলালের সমর্থনে মিছিলও বার করা হয়। পুলিশি জেরার মুখে শম্ভুলাল জানিয়েছে, আফরাজুল তার লক্ষ্য ছিল না। হিন্দুস্তান টাইমসকে এমনই জানিয়েছে রাজস্থান পুলিশ।

রাজসমন্দের পুলিশ আধিকারিক রাজেন্দ্র সিংহ রাও বলেন, “আজ্জু শেখ নামের একজনকে মারতে চেয়েছিল শম্ভুলাল। তার মতে এক মহিলা, যাকে শম্ভু নিজের বোন মনে করত, তার সঙ্গে সম্পর্ক ছিল আজ্জুর। তবে আমাদের মনে হয় ওই মহিলার সঙ্গে শম্ভুরও সম্পর্ক ছিল।”

আফরাজুলের মতো মালদার বাসিন্দা আজ্জুও রাজসমন্দে শ্রমিক হিসেবে কাজ করত। পুলিশের মতে শম্ভুর সঙ্গে অঞ্জুর শুধু ফোনে কথা হয়েছিল তবে তাকে সামনাসামনি কখনও দেখেনি। তাই আফরাজুলকে আজ্জু ভেবে ভুল করে ফেলে শম্ভুলাল।

রাজস্থানের নাথদ্বারের বাজারে আজ্জুর খোঁজ করতে যায় শম্ভুলাল। পুলিশের মতে আজ্জুকে খুঁজে না পেয়ে ওখানে থাকা শ্রমিকদের কাছে আজ্জুর ফোন নম্বর চায় শম্ভু। ওই শ্রমিক আজ্জুর বদলে ভুল করে আফরাজুলের ফোন নম্বর দিয়ে দেয়। ঘটনাক্রমে আফরাজুল এবং আজ্জুর গলা এক রকম হওয়ায় দু’জনকে আলাদা ভাবে বুঝতে পারেনি শম্ভুলাল।

পুলিশের জানায়, “৬ ডিসেম্বর সকাল ৯টায় আজ্জুর সঙ্গে কথা বলছে ভেবে আফরাজুলকে ফোন করে শম্ভু। সাড়ে দশটা নাগাদ দু’জনে একসঙ্গে চা-ও খায়। তার কিছুক্ষণের মধ্যেই আফরাজুলকে খুন করে শম্ভুলাল।”

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here