ওয়েবডেস্ক: আন্দামান দ্বীপপুঞ্জের উত্তর সেন্টিনেল দ্বীপে যেতে গিয়ে সেই দ্বীপের বসবাসকারীদের তীরের আঘাতে মৃত্যু হয়েছে মার্কিন নাগরিক জন চাউয়ের। এই হত্যাকাণ্ডে ফের একবার নাম পাওয়া গিয়েছে বহির্বিশ্বের থেকে একেবারে আলাদা থাকে এই দ্বীপের বাসিন্দাদের, যারা সেন্টিনালিজ হিসেবে পরিচিত। এখনও এদের গায়ে তথাকথিত সভ্যতার আলো পৌঁছোয়নি।

একবার দেখে নেব এই সেন্টিনালিজদের ব্যাপারে কিছু তথ্য

  • সেন্টিনালিজ প্রজাতির মানুষদের কাছাকাছি বাইরে কাউকে ঘেঁষতে দেওয়া হয় না।
  • ৬০ হাজার বছর আগে এই সেন্টিনালিজদের বসবাস শুরু এই দ্বীপে। আফ্রিকা থেকে বেরোনো প্রথম মানুষদের উত্তরপুরুষ হিসেবে ধরা হয় এদের।
  • বাইরের মানুষদের তারা সহ্য করতে পারে না। অসম্ভব আগ্রাসী।
  • উত্তর সেন্টিনেল দ্বীপের ৩ মাইলের মধ্যে কাউকে যেতে দেওয়া হয় না। সরকারি আধিকারিকদেরও পা পড়ে না এখানে। নিজের মতো করেই থাকতে দেওয়া হয় তাদের।
  • ন্যাশনাল জিওগ্রাফির হয়ে একটি তথ্যচিত্র করার জন্য ১৯৭৪ সালে এই দ্বীপের কাছাকাছি পৌঁছে ছিলেন এক চিত্রপরিচালক। সেন্টিনালিজদের ছোড়া তীর লাগে তাঁর পায়ে।
  • ২০০৪-এ সুনামির পরে, প্রশাসনের উদ্যোগে তাদের খোঁজখবর নেওয়া শুরু হয়। কিন্তু দ্বীপের ওপরে পৌঁছোতেই তাদের হেলিকপ্টার লক্ষ করে তীর ছোড়ে সেন্টিনালিজরা।
  • শেষ সুমারিতে দেখা গিয়েছে, এখন ৫০ থেকে দেড়শো সেন্টিনালিজ মানুষ এখানে বাস করে। দ্রুত ব্যবস্থা না নেওয়া হলে ভাইরাস সংক্রমণ পুরো প্রজাতিটাকেই বিলুপ্তির পথে ঠেলে দিতে পারে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here