Gauri Lankesh,Govind Pansare, Narendra Dabholkar and MM Kalburgi killings

বেঙ্গালুরু: ৩৬ ঘণ্টা কেটে গেল, এখনও গৌরী লঙ্কেশের হত্যাকারীদের খুঁজে বার করতে পারেনি পুলিশ। এই হত্যার প্রতিবাদে এখনও বিক্ষোভ জারি রয়েছে। কট্টর-হিন্দুত্ববাদ বিরোধী হিসেবে পরিচিত লঙ্কেশকে তাঁর মনোভাবের জন্যই খুন হতে হল কি না সে ব্যাপারে এখনও কিছু জানা যায়নি।

সূত্রের খবর, রাজনৈতিক এবং শিল্পপতিদের দুর্নীতি ফাঁস করার ব্যাপারে চিন্তাভাবনা করছিলেন তিনি। সে কারণেও তাঁকে সরিয়ে দেওয়া হতে পারে, এই সন্দেহও দানা বাঁধছে। তবে কারণ যাই হোক, ব্যাপারটা যে মত প্রকাশের স্বাধীনতার পরিপন্থী সে কথা মনে করিয়ে দিয়েছে ‘অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল ইন্ডিয়া।’

পানেসারে, দাভোলকর, কালবুর্গিকে হত্যার অস্ত্রই ব্যবহৃত

প্রাথমিক ভাবে জানা গিয়েছে, লঙ্কেশকে খুন করতে দেশি ৭.৬৫ এমএম পিস্তল ব্যবহার করেছিল আততায়ীরা। প্রসঙ্গত ২০১৩ সালে নরেন্দ্র দাভোলকর, ২০১৫-তে গোবিন্দ পানেসারে এবং এমএম কালবুর্গিকে হত্যা করতেও ঠিক একই ধরনের অস্ত্র ব্যবহার করা হয়েছিল।

কে খুন করল লঙ্কেশকে?

লঙ্কেশের বাড়ির সামনের দু’টো সিসিটিভি থেকে যে ফুটেজ কর্নাটক পুলিশের হাতে এসেছে, তাতে দেখা যাচ্ছে মাথায় হেলমেট পরা একটি লোক, লঙ্কেশের পিছু নিয়ে তাঁর বাড়ির সামনে গুলি চালায়। আপাতত লঙ্কেশ যেখান থেকে ফিরছিল অর্থাৎ, বসবনগুড়ি এবং যেখানে তাঁকে খুন করার হল, অর্থাৎ রাজরাজেশ্বরী নগরের সব সিসিটিভি ফুটেজ যাচাই করছে পুলিশ।

‘কেউ আমার ওপর নজর রাখছে’

তদন্তের কাজ চালিয়ে যাচ্ছে পুলিশ। তবে ইতিমধ্যেই একটা বড়ো সূত্র তাদের হাতে এসেছে। গৌরীর বোন কবিতা লঙ্কেশ পুলিশকে জানিয়েছেন যে, কিছু দিন আগেই গৌরী তাঁকে বলেন, কেউ সন্দেহজনক ভাবে তাঁর ওপর নজর রাখছে। কবিতা এবং তাঁদের মা ইন্দিরাদেবী বলেছিলেন পুলিশের কাছে ব্যাপারটা জানাতে, কিন্তু সেটা উড়িয়ে দেন গৌরী। ভবিষ্যতে কিছু হলে, তার পর পুলিশে রিপোর্ট করবেন বলে জানান তিনি।

কারণ কি নকশাল?

নকশালদের নিয়েও কাজ করেছেন গৌরী। তাঁর ভাই ইন্দ্রজিৎ বলেছেন, কিছু দিন হল গৌরী নাকি নকশালদের তরফ থেকেও হুমকি পাচ্ছিলেন। যদিও এই ব্যাপারে কখনও মুখ খোলেননি তিনি। ইন্দ্রজিতের এই দাবি অবশ্য উড়িয়ে দিয়েছেন বোন কবিতা। তিনি বলেন, নকশালরা যাতে সমাজের মূল স্রোতে ফিরে আসতে পারে, সে জন্য দীর্ঘদিন কাজ করছিলেন তাঁর দিদি। কবিতার কথায়, “গৌরীর সম্পর্কে আমার ভাই কিছু জানেই না। গৌরী তো আমাদের সঙ্গে থাকত।”

বিদ্বেষমূলক কথা বললে ব্যবস্থা নেওয়া হবে, সতর্ক করল টুইটার

গৌরী লঙ্কেশের মৃত্যুর পর টুইটারে বিদ্বেষমূলক কথাবার্তার ঝড় বয়ে গিয়েছে। অনেকেই গৌরীর হত্যা সমর্থন করে টুইট করেছে। বিদ্বেষমূলক কথা বললে ব্যবস্থা নেওয়া হবে, সে ব্যাপারে সতর্ক করে দিল টুইটার। এই সাইট জানিয়েছে, মতবিরোধ থাকতেই পারে, কিন্তু সেটা কখনওই বিদ্বেষে পরিণত হওয়া উচিত নয়।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন