kerala ldf

খবরঅনলাইন ডেস্ক: কেরলে সাধারণত পাঁচ বছর অন্তর রাজনৈতিক পালাবদল ঘটে। ফলে ২০১৫ সালে স্থানীয় নির্বাচনে ব্যাপক ভাবে জয়লাভ করা বামজোট এ বার কংগ্রেস-জোটের কাছে পরাজিত হতে পারে, এমন সম্ভাবনা ছিল। কিন্তু দেখা গেল, কংগ্রেস-জোটের কাছে পরাজিত হওয়া তো নয়ই বরং পাঁচ বছর আগের ফলাফলের থেকেও ভালো ফল করেছে বামেরা।

ভোটের ফলাফল প্রকাশিত হওয়ার পরেই মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়নের টুইট, “কেরলকে যারা ধ্বংস করতে চাইছে, তাদের প্রতি বার্তা দিলেন কেরলকে যাঁরা ভালোবাসেন, তাঁরা।”

পৌরনিগমে একচ্ছত্র আধিপত্য বামেদের

কেরলে ছ’টি পৌরনিগম, তথা Municipal Corporation। এর মধ্যে ৫টাতেই সংখ্যাগরিষ্ঠ আসন পেয়েছে বামেরা। যদিও কোচি এবং ত্রিসুর পৌরনিগমে বোর্ড তৈরি করার ক্ষেত্রে নির্দলদের ওপরে ভরসা করতে হবে বামকে।

এ দিকে তিরুঅনন্তপুরম, কোল্লম এবং কোড়িকোড় পৌরনিগমে একক সংখ্যাগরিষ্ঠ হয়েছে বামেরা। তিরুঅনন্তপুরমে পাঁচ বছর আগের ফলাফল আরও ভালো করে ১০০টার মধ্যে ৫১টা ওয়ার্ড জিতেছে বামজোট। ২০১৫-এর মতো এ বারও এই পৌরনিগমে তৃতীয় স্থানে রয়েছে কংগ্রেসজোট।

গ্রাম পঞ্চায়েত এবং জেলা পঞ্চায়েতে বামেদের দাপট

কেরলে ৯৪১টা গ্রাম পঞ্চায়েতের মধ্যে বামেরা জিতেছে ৫১৪টা পঞ্চায়েত। পাঁচ বছর আগে ৫৪৯টা গ্রাম পঞ্চায়েতের দখল নিয়েছিল তারা। কংগ্রেস জোট জিতেছে ৩৭৫টা গ্রাম পঞ্চায়েতে।

অন্য দিকে ১৪টার মধ্যে ১১টা জেলা পঞ্চায়েতেই শাসন করবে বামেরা। পাঁচ বছর আগে ৭টা জিতেছিল তারা। অর্থাৎ, এ বার আরও বাড়তি চারটে জেলা পঞ্চায়েতের দখল নিয়েছে তারা। এই জেলাগুলি হল, তিরুঅনন্তপুরম, কোল্লম, পতনমতিট্টা, আলাপুড়া, কোট্টায়াম, ইদুকি, ত্রিসুর, পালাক্কাড়, কোড়িকোড়, কান্নুর, কাসারাগোড।

অন্য দিকে কংগ্রেস জোট জিতেছে ওয়েনাড়, এর্নাকুলম এবং মালাপ্পুরম জেলা পঞ্চায়েতে। তুলনায় কংগ্রেস জোট জোটের দাপট কিছুটা বেশি ছিল রাজ্যের পুরসভা, অর্থাৎ Municipalities-এ। রাজ্যে ৮৬টা পুরসভার মধ্যে ৪৫টা পুরসভার দখল নিয়েছে কংগ্রেসজোট, ৩৫-এ জিতেছে বামজোট।

এর মধ্যে অনেক নতুন নতুন জায়গার এ বার দখল নিয়েছে বামেরা। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা কংগ্রেস নেতা ওমেন চান্ডির পুতুপাল্লি। ২৫ বছর পর এই শহরে পুরবোর্ড গঠন করবে বামেরা।

প্রভাব ফেলতে ব্যর্থ বিজেপি

গেরুয়া শিবির আশা করেছিল, এই স্থানীয় নির্বাচনের মধ্যে দিয়ে কেরলে তারা প্রভাব বিস্তার করবে। কিন্তু সে ভাবে কোনো প্রভাবই ফেলতে পারল না তারা। বরং, তিরুঅনন্তপুরম পৌরনিগমে পাঁচ বছর আগের ফলাফলের থেকেও বাজে ফল করল গেরুয়া শিবির।

নিগমের ১০০টা ওয়ার্ডের মধ্যে ৩৫টা ওয়ার্ড আগের বার জিতেছিল বিজেপি। এ বার তারা জিতেছে ৩২টা ওয়ার্ডে। তবুও এই পৌরনিগমে আগের বারের মতো এ বারও প্রধান বিরোধী দল বিজেপি।

তবে বাকি পৌরনিগমগুলিতে কিছু কিছু ওয়ার্ড জিতেছে বিজেপি। কোচিতে তিনটে ওয়ার্ড বাড়িয়েছে তারা, কান্নুরে প্রথম বারের জন্য খাতা খুলেছে গেরুয়া শিবির। তবুও প্রভাব নগণ্য। অন্য দিকে, ৮৬টা পুরসভার মধ্যে মাত্র দু’টি পুরসভা জিতেছে গেরুয়া শিবির। এর মধ্যে পালাক্কাড় পুরসভাটি পাঁচ বছর আগেও তারাই জিতেছিল।

পাঁচ বছর আগে ১৪টা গ্রাম পঞ্চায়েত জিতেছিল গেরুয়া শিবির। এ বার সেটা কিছুটা বেড়ে ২৩ হয়েছে। তবে তারা বড়ো ধাক্কা খেয়েছে ত্রিসুর পৌরনিগমে। যেখানে পরাজিত হয়েছেন রাজ্য বিজেপির মুখপাত্র বি গোপালকৃষ্ণন।

আরও পড়ুন: তৃণমূলের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন হতে বাকি মাত্র একটা ধাপ, শুভেন্দু অধিকারীকে নিয়ে লাভের আশা করছে বিজেপি

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন