সাধারণ সম্পাদকের পদ ছাড়লেন গণপতি, মাওবাদী নেতৃত্বে রদবদল

0

ওয়েবডেস্ক: বার্ধক্যজনিত কারণে মাওবাদীদের সাধারণ সম্পাদকের পদ থেকে সরে দাঁড়ালেন মুপ্পালা লক্ষ্মণ রাও ওরফে গণপতি। তাঁর জায়গায় এই পদে বসেছেন নম্বলা কেশব রাও ওরফে বাসবরাজু। এমনই জানা গিয়েছে মাওবাদী সূত্রে।

২০০৪-এ মাওবাদীদের যাত্রা শুরু থেকেই দলের সাধারণ সম্পাদকের পদে ছিলেন গণপতি। কিন্তু বয়স হওয়ার ফলে সেই পদ ছেড়ে দিয়েছেন তিনি। এই বিষয়েই সংবাদমাধ্যমে একটি বিবৃতি দিয়েছেন মাওবাদীদের মুখপাত্র অভয়। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “বয়স এবং শারীরিক অসুস্থতার কারণে সাধারণ সম্পাদকের পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর ইচ্ছে প্রকাশ করেছিলেন গণপতি। কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠকে সেই ব্যাপারে সর্বসম্মত হয় সবাই। বাসবরাজুকে এই পদে বসানো হয়েছে।”

বিবৃতিতে গত ১০ নভেম্বরের তারিখ দেওয়া রয়েছে।

আরও পড়ুন নিরাপত্তাবাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে নিহত সুজাত বুখারির খুনে অভিযুক্ত লস্কর জঙ্গি

প্রাক্তন স্কুলশিক্ষক গণপতি ১৯৭০ সালে নকশাল আন্দোলনে যোগ দেন। ১৯৯২-এ অন্ধ্রের সিপিআই (এমএল) (পিপলস ওয়ার)-এর প্রধান হন। এর পরে এই দল একাধিক নকশালপন্থী দলের সঙ্গে একত্রিত হয় এবং ২০০৪ সালে গঠন হয় সিপিআই (মাওবাদী)।

এত দিন পর্যন্ত মাওবাদীদের সামরিক বাহিনীর প্রধান ছিলেন বাসবরাজু। তাই পুলিশের সন্দেহ বাসবরাজুর নেতৃত্বে মাওবাদীরা আরও বেশি করে রক্তক্ষয়ী আন্দোলনে নামবে। বস্তারের এক পুলিশ অফিসার বলেন, “গণপতির থেকে অনেক বেশি আগ্রাসী বাসবরাজু। তাই এর পর থেকে রক্ত আরও বেশি করে ঝরবে বলেই আন্দাজ করা হচ্ছে।”

------------------------------------------------
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.