বিহারে দুর্দান্ত লড়াই বামেদের, ২৯-এর মধ্যে এগিয়ে ১৮ আসনে

0
CPIM
প্রতীকী ছবি

খবরঅনলাইন ডেস্ক: আরজেডির নেতৃত্বাধীন মহাজোটের অংশ হয়েছে তিন বাম দল। এখনও পর্যন্ত যা ইঙ্গিত তাতে সরকার গড়ার পথে অনেকটাই এগিয়ে রয়েছে বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট। বিরোধী আরজেডি এবং কংগ্রেস হতাশ। তবে এরই মধ্যে উজ্জীবিত হওয়ার মতো কারণ খুঁজে পেয়েছে বাম দলগুলি।

রাজ্যে এ বার মোট ২৯টি আসনে প্রার্থী দিয়েছিল বামেরা। বিকেল সাড়ে চারটের পরিসংখ্যান অনুযায়ী এর মধ্যে ১৮টি আসনে এগিয়ে রয়েছে তারা।

Loading videos...

এখনও পর্যন্ত ফলাফলের যা প্রবণতা সেই অনুযায়ী বিহারের আগিয়াওন, আরা, আরওয়াল, বলরামপুর, বিভূতিপুর, দারাউলি, দারাউন্ধা, ঘোষি, কারাকাট, মাধি, মতিহারি, পালিগঞ্জ, তারারি, ওয়ারিশনগর, জিরাদেই, বাছাওয়ারা ও বাখরি প্রভৃতি আসনে এগিয়ে রয়েছেন বাম প্রার্থীরা।

আগে বিহারের রাজনীতিতে বড়ো শক্তি ছিল বামেরা। কিন্তু গত ১০ বছর ধরে এ রাজ্যে বামেদের ভোট কমতে থাকে। এমনকি দলগুলোর অস্তিত্ব টিকবে কি না তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছিল। ২০১০ সালে সিপিএম মাত্র একটি আসন জিততে পেরেছিল। ২০১৫ সালে সিপিআই (এমএল) জিতেছিল তিনটে আসনে।

কিন্তু এ বার ফলাফলের প্রবণতা বেশ অন্য রকম। ১৮টি আসনের মধ্যে সিপিআই (এমএল) এগিয়ে ১২টি আসনে। সিপিএম এবং সিপিআই তিনটে করে আসনে এগিয়ে। উল্লেখ্য, আরজেডির জোটের অংশ হিসেবে সিপিআই (এমএল) ১৯টি আসনে প্রার্থী দিয়েছিল। সিপিএম এবং সিপিআই প্রার্থী দিয়েছিল যথাক্রমে ৬টি এবং ৪টি আসনে।

গণনা খুব ধীরগতিতে হচ্ছে। নির্বাচন কমিশন বলেই দিয়েছে চূড়ান্ত ফলাফল আসতে মধ্যরাত পেরিয়ে যেতে পারে। তবে সকাল থেকে বামদের পক্ষে যে প্রবণতা দেখা দিয়েছে, সেটা যদি শেষ পর্যন্ত টিকে থাকে তা হলে বাম শিবির যে উজ্জীবিত হবেই, তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

(বিহারের ভোটগণনার যাবতীয় তথ্য জানতে ক্লিক করুন এখানে)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.