lucknow passport love jihad

ওয়েবডেস্ক: এ বার কি সরকারি অফিসেও ঢুকে পড়ল লাভ জিহাদ? এক আন্তঃধর্মীয় দম্পতিকে হেনস্থার অভিযোগ উঠল উত্তরপ্রদেশের এক পাসপোর্ট অফিসারের বিরুদ্ধে। এই বিষয়ে ওই দম্পতি অভিযোগ জানালে ওই আধিকারিককে বদলি করে দেওয়া হয়।

বিদেশে যাওয়ার জন্য পাসপোর্টের আবেদন করেছিলেন হিন্দু মহিলা তনবি শেঠ এবং তাঁর স্বামী মুসলিম ধর্মাবলম্বী আনাস সিদ্দিকি। বুধবার প্রথামাফিক পাসপোর্ট অফিসে তাঁদের ইন্টারভিউ ছিল। সেই ইন্টারভিউ চলাকালীন পাসপোর্ট অফিসার তাঁদের হেনস্থা করেন বলে অভিযোগ। তনবির অভিযোগ, তাঁর নিজের আবেদন যেমন গ্রহণ করতে চাইছিলেন না ওই আধিকারিক, ঠিক তেমনই সিদ্দিকির পাসপোর্টের পুনঃনবীকরণের আবেদনও ফিরিয়ে দেন তিনি।

শুধু তা-ই নয়, মহিলার অভিযোগ, তাঁর স্বামীকে ধর্ম বদলে ফেলারও ‘পরামর্শ’ দেন ওই আধিকারিক। ওই মহিলা হিন্দু নাম ব্যবহার করেন। তাঁর অভিযোগ, তাঁর নামও বদলে ফেলার ‘পরামর্শ’ দিয়েছিলেন ওই আধিকারিক।

বারো বছর আগে এই দম্পতির বিয়ে হয়। তনবি বলেন, এর আগে কখনও এ রকম ভাবে তাঁকে অপমানিত হতে হয়নি।

গোটা ঘটনায় ওই আধিকারিকের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়ে বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজকে টুইট করেন তনবি। তার পরেই নড়েচড়ে বসে প্রশাসন। টুইটারে বিদেশমন্ত্রকের তরফ থেকে আশ্বাস দেওয়া হয়, ওই আধিকারিকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তার পরেই তাঁকে বদলি করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। লখনউয়ের আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসার পীযূষ মিশ্র বলেন, “ওই দম্পতির পাসপোর্ট দিয়ে দেওয়া হয়েছে। যে আধিকারিক তাঁদের হেনস্থা করেছেন, তাঁর বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এই ধরনের ঘটনা, ভবিষ্যতে যাতে আর না ঘটে, সেই দিকে আমরা নজর দেব।”

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here