উজ্জইন : তিন বার ‘তালাক’ শব্দটি উচ্চারণ করে বিবাহবিচ্ছেদ ঘটিয়েছিলেন তৌশিফ শেখ। কিন্তু মুসলিম শরিয়া মেনে বিবাহবিচ্ছেদ হয়নি, এই যুক্তিতে বিবাহবিচ্ছেদটি বৈধ নয় বলে রায় দিল উজ্জইনের একটি আদালত। উজ্জইনের বেগমবাগের মেয়ে আরশি। স্বামী তৌশিফ শেখ। তাঁদের বিবাহবিচ্ছেদের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করেন আরশি। সেই মামলার রায় ঘোষণার সময় ভারতীয় আইনের নয়, মুসলিম শরিয়ার ব্যখ্যা দিল মধ্যপ্রদেশের এই আদালত।

২০১৩ সালে আরশি আর তৌশিফের বিয়ে হয়। তার পর থেকে আরশি ও তাঁর পরিবারের কাছ থেকে টাকাপয়সা দাবি করতে থাকেন তৌশিফ। আরশির ওপর শারীরিক অত্যাচারও করেন। অবশেষে ২০১৪ সালের ৯ অক্টোবর তৌশিফ তিন তালাক দেন আরশিকে। সেই বিবাহবিচ্ছেদের বিরুদ্ধেই আরশি আদালতের দারস্থ হয়েছিলেন। শরিয়ায় বিবাহবিচ্ছেদ সংক্রান্ত অনেক নিয়মই মানা হয়নি বলে রায় দেয় উজ্জইনের আদালত।

মুসলিম পণ্ডিত ও আইনজীবী হাফিজ কুরেশি বলেন, তিন তালাক নিয়ে অনেক লোক অনেক রকম মত প্রকাশ করছেন। কিন্তু এ ব্যাপারে কুরানে কী বলা আছে তা কেউ পড়ে দেখছেন না। মুসলিম আইন ও প্রথা নিয়ে অপব্যাখ্যা বন্ধ হওয়া দরকার।

আরও পড়ুন : তিন তালাক প্রসঙ্গে নীরব থাকা দ্রৌপদীর বস্ত্রহরণের কথা মনে করিয়ে দেয়: আদিত্যনাথ

প্রসঙ্গত, একটি ভারতীয় আদালতে এই রায় এমন সময়ে দেওয়া হল, যখন মুসলিমদের বহুবিবাহ আর তিন তালাকের বৈধতা নিয়ে বিতর্ক তুঙ্গে। আসন্ন গ্রীষ্মকালীন ছুটিতে এর বৈধতা নিয়ে শুনানি চলবে বলে জানিয়েছে দেশের সর্বোচ্চ আদালত।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here