ওয়েবডেস্ক: খবর মিলেছিল, পুরোদমে ৭ জুলাই বিয়ের প্রস্তুতি চলছিল মিঠুন চক্রবর্তীর উধাগামণ্ডলমের পাঁচতারা হোটেলে। কিন্তু সেখানে যখন পুলিশের একটি দল পৌঁছল গ্রেফতারি পরোয়ানা নিয়ে, স্বাভাবিক ভাবেই ভেস্তে গেল অনুষ্ঠান। বিয়ের পিঁড়িতে বসার আগেই শনিবার পুলিশের হাতে গ্রেফতার হতে হল মিঠুনের স্ত্রী যোগিতা বালি এবং ছেলে মহাক্ষয় চক্রবর্তীকে। অভিযোগ কম গুরুতর নয়- রাজধানীর এক তরুণীর পানীয়তে ড্রাগ মিশিয়ে তাঁর শারীরিক সুযোগ নেওয়া এবং পরে তিন বছর ধরে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সহবাস করে চলা! পাশাপাশি রয়েছে, বেআইনি ভাবে, তরুণীর ইচ্ছার বিরুদ্ধে ওষুধ দিয়ে তাঁকে গর্ভপাতে বাধ্য করানো! তবে শুধু মহাক্ষয়ই নয়, ঘটনায় জড়িত মিঠুনের স্ত্রীও। তিনিই তরুণীর প্রাণনাশের হুমকি দিয়েছেন বলে অভিযোগ!

খবর এও বলছে, মহাক্ষয় এবং যোগিতা গ্রেফতার হওয়ার পর কন্যাপক্ষ না কি বিয়ের বাসর ছেড়ে বেরিয়ে যান! সেই রাতেই ফিরেও আসেন মুম্বইতে। কিন্তু পাত্রী মদালসা শর্মা সম্প্রতি জানিয়েছেন, মহাক্ষয়ের সঙ্গে তাঁর বিয়ে না কি হয়ে গিয়েছে! তার পরেই না কি গ্রেফতার হয়েছেন মহাক্ষয়!

অবশ্য, সেটা যে অস্বাভাবিক কিছু নয়, তার প্রমাণ মিলেছিল এর আগে কনের মা শীলার কথায়। “ওই মেয়েটি মহাক্ষয়কে বিরক্ত করার কম চেষ্টা করেনি। ব্যাপারটা নিয়ে এত বাড়াবাড়ি হয়েছিল যে মহাক্ষয় এর আগে মামলাটি যাতে আদালতের তত্ত্বাবধানে নিষ্পত্তি হয়, তার জন্য লিখিত অভিযোগও দায়ের করেছিল। এর পর ওই তরুণী চুপ করে যান। কিন্তু এখন বিয়ের ঠিক আগেই কেন ঝামেলা করছেন তিনি?” পাল্টা প্রশ্ন তুলেছিলেন তিনি। যদিও এখন বিয়ে হয়েছে কি হয়নি, এ নিয়ে কোনো মন্তব্যই করতে চাইছেন না তিনি!

আরও পড়ুন: ভেস্তে গেল বিয়ে, গ্রেফতারের পর জামিন পেলেন মিঠুন চক্রবর্তীর ছেলে আর স্ত্রী

কেন, তা আশা করাই যায়, পরে ঠিক জানা যাবে!

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here