farmers suicide in maharashtra

ইয়াভাতমল (মহারাষ্ট্র): ঋণের বোঝা এবং ব্যর্থ ফসলের চাপ সহ্য করতে না পেরে আত্মহত্যা করলেন মহারাষ্ট্রের এক কৃষক। আত্মহত্যা করার আগে সুইসাইড নোটে দায়ী করে গেলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং তাঁর সরকারকে।

আত্মহত্যা করার আগে একটি ছ’পাতার নোটে লিখে গিয়েছিলেন বছর ৫৫-এর কৃষক শঙ্কর ভাউরাও চৌরে। সেখানে তিনি বলেন, “ঋণের বোঝা শস্য করতে না পেরে আমি আত্মহত্যা করতে বাধ্য হচ্ছি। আমার এই পরিণতির জন্য দায়ী নরেন্দ্র মোদী এবং তাঁর সরকার।”

তাঁর মৃত্যুর পরে তাঁর পরিবারকে দেখার জন্য কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হংসরাজ আহির, মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়নবীস, স্থানীয় বিজেপি বিধায়ক রাজু টোডসামের কাছে আবেদনও করে গিয়েছেন ওই কৃষক।

সুইসাইড নোটে যে মোদীর নাম লেখা রয়েছে সে খবর নিশ্চিত করেন ইয়াভতমলের পুলিশ সুপার রাজ কুমার। পিটিআইকে তিনি বলেন, “আমরা সুইসাইড নোট উদ্ধার করেছি। এই নোটে মোদীর কথা উল্লেখ করা আছে এবং ওই কৃষকের মৃত্যুর জন্য মোদীকেই দায়ী করা আছে। এই নোটটির সত্যতা বিচারের জন্য তদন্ত করা হচ্ছে।” ওই কৃষকের দেহ ময়না তদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।

প্রায় ন’একর জমি রয়েছে চৌরের। জমি এখন ফাঁকাই পড়ে রয়েছে। তুলোর চাষ করেছিলেন ওই জমিতে কিন্তু পোকার আক্রমণে সে চাষ নষ্ট হয়ে গিয়েছে। ব্যাঙ্ক এবং অন্যান্য জায়গা থেকে প্রায় এক লক্ষ ৪০ হাজার টাকা ধার করেছিলেন এই কৃষক।

তবে এই কৃষকের পরিবারের লোকেরা জানিয়েছেন, যতক্ষণ না প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে অপরাধমূলক মামলা দায়ের করা হবে ততক্ষন এই দেহের শনাক্ত তাঁরা করবেন না। পাশাপাশি কেন্দ্রের থেকে এক কোটি টাকা ক্ষতিপূরণও দাবি করেছেন তাঁরা।

মহারাষ্ট্রে কৃষক আত্মহত্যার সমস্যা নতুন কোনো ঘটনা নয়। দশকের পর দশক ধরে এই ঘটনা ঘটে আসছে। কিন্তু সাম্প্রতিক কালে কেন্দ্র এবং বিজেপি শাসিত রাজ্যে যে ভাবে কৃষক বিক্ষোভ শুরু হয়েছে তাতে চিন্তার ভাঁজ পড়ে গিয়েছে কেন্দ্রের কপালে। সেই ভাঁজকেই আরও বাড়িয়ে তুলল এই কৃষকের আত্মহত্যা এবং তার সুইসাইড নোটটি।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here