gauri lankesh

বেঙ্গালুরু: গৌরী লঙ্কেশ হত্যায় হাত রয়েছে হিন্দুত্ববাদী সংগঠনের। এমনই দাবি করল হত্যায় ধৃত মূল অভিযুক্ত নবীন কুমার। এমনই জানা গিয়েছে ইংরেজি দৈনিক ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসে প্রকাশিত এক রিপোর্টে।

লঙ্কেশের হত্যায় হিন্দুত্ববাদী সংগঠন সনাতন সংস্থা এবং তার শাখা সংগঠন হিন্দু জনাগ্রুতি সমিতির (এইচজেএস) ভূমিকার কথা বলেছে নবীন। তদন্তে জানা গিয়েছে, লঙ্কেশের হত্যার পরিকল্পনার সঙ্গে নবীনকে সনাতন সংস্থার সঙ্গে যোগাযোগ রাখতে বলেছিলেন এইচজেএসের মুখপাত্র মোহন গৌড়া।

নবীনের বয়ান অনুযায়ী, গত বছর সুজিত কুমার নামক এক ব্যক্তির সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেন গৌড়া। উল্লেখ্য, লঙ্কেশ হত্যায় যুক্ত থাকার অভিযোগে গত ৩১ মে সুজিত-সহ আরও চার জনকে গ্রেফতার করেছে কর্নাটক পুলিশ।

হত্যার যুক্ত থাকার সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছে গৌড়া। তিনি বলেন, “এটা পুলিশের ষড়যন্ত্র। আমরা কিছু দিনের মধ্যেই সাংবাদিক সম্মেলন ডেকে সব কিছু খোলসা করব।”

পুলিশকে দেওয়া বয়ানে নবীন দাবি করেছে, গত বছর গোয়ার পোন্ডায় সনাতন সংস্থার একটি কর্মশালায় অংশগ্রহণ করে সে। ‘হিন্দু ধর্মকে রক্ষা করার জন্য’ অস্ত্র হাতে নেওয়ার ব্যাপারে বক্তব্য রাখে সে। নবীনের দাবি, “আমার বক্তব্যে অনেকেই অনুপ্রাণিত হয়ে আমাকে বাহবা দিয়ে যান। গৌড়াও আমাকে খুব প্রশংসা করেন। আমি তাঁকে বলি, দরকারে আমি অস্ত্র তুলে নেব।”

কিছু দিন আগে পুলিশ যে চার্জশিট পেশ করেছে, তাতে বলেছে, ‘হিন্দু ধর্মের বিরুদ্ধে কথা বলা, হিন্দু দেবদেবীর অপমান করার জন্যই’ আততায়ীরা গৌরী লঙ্কেশকে খুন করেছে।

নবীনের আরও দাবি, ওই কর্মশালার কিছু দিনের মধ্যেই প্রবীণ নামক এক ব্যক্তি তার সঙ্গে দেখা করে। তাকে কয়েকটি গুলিও দেয় প্রবীণ। সেগুলি দিয়েই লঙ্কেশকে মারার কথা বলে সে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here