নোট বাতিল ইস্যুতে প্রত্যাশামতোই সংসদের বাইরে ও ভেতরে বিরোধীদের তীব্র আক্রমণের মুখে পড়ল কেন্দ্রীয় সরকার। এক দিকে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে দেখা করল তৃণমূল, শিবসেনা, ন্যাশনাল কনফারেন্স আর আপ। অন্য দিকে রাজ্যসভায় সরকারকে বিঁধল কংগ্রেস, সিপিএম-সহ একাধিক রাজনৈতিক দল। তবে বিরোধীদের সব অভিযোগ খণ্ডন করেছে শাসকদল বিজেপি।

এ দিন রাষ্ট্রপতি ভবনে যাওয়ার আগে সংসদের সামনে ধর্না দেয় তৃণমূল। সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে এই ধর্নায় তৃণমূলের সব সাংসদেরই পরনে ছিল কালো পোশাক। প্রত্যেকের হাতেই ছিল প্ল্যাকার্ড। এর পরই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে মিছিল করে রাষ্ট্রপতি ভবনের উদ্দেশে রওনা দেয় তৃণমূল। সঙ্গে ছিলেন জম্মু ও কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা ন্যাশনাল কনফারেন্স নেতা ওমর আবদুল্লাহ, ছিলেন আপের সাংসদ ভগবন্ত মানও। মমতার সঙ্গে যোগ দেন শিবসেনার প্রতিনিধিরাও। রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করে ছয় দফা দাবিসম্বলিত একটি স্মারকলিপি দেওয়া হয়।

Loading videos...

রাষ্ট্রপতি ভবনে যাওয়ার আগে কেন্দ্রকে তীব্র আক্রমণ করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর অভিযোগ, “নতুন নোটের জোগানের ব্যবস্থা না করে কেন বাতিল? আমরা সবাই কালো টাকার বিরুদ্ধে, কিন্ত কেন্দ্রের এই হঠকারী সিদ্ধান্ত মহম্মদ বিন তুঘলকের মতো।” এ রকম চললে যে দেশে অরাজকতা সৃষ্টি হবে, সে কথাও বলেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি আরও বলেন, “এই সিদ্ধান্তে মানুষকে ভাতে মারার চেষ্টা হচ্ছে। যাঁর কাছে ডেবিট বা ক্রেডিট কার্ড নেই, তাঁর কি খাওয়ার অধিকার নেই?” মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “এটিএমের অর্থ এখন ‘আয়েগা তব মিলেগা’।” নোট বাতিলের প্রতিবাদে সমস্ত বিরোধী দলকে এক হওয়ার আহ্বান জানান মুখ্যমন্ত্রী। তাঁর আবেদন, “মানুষের স্বার্থে সব নেতার এগিয়ে আসা উচিত।”

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.