NCR
ছবি: টাইম৮ থেকে

নিজস্ব প্রতিনিধি, গুয়াহাটি: নাগরিকপঞ্জী (এনআরসি) থেকে নাম বাদ পড়ার হতাশা থেকে মু্ক্তি পেতে আত্মহত্যার পথ বেছে নিলেন অসমের বাকসার এক ৩৭ বছরের যুবক।

জানা গিয়েছে, বিনয় চন্দ নামে আত্মঘাতী ওই যুবক গত ৩০ জুলাই নাগরিকপঞ্জী থেকে নাম বাদ পড়ার পর থেকেই চরম হতাশায় ভুগছিলেন।

তামুলপুরের দিমিলাপারগ্রামের বাকসার বাসিন্দা বিনয় পেশায় দিনমজুর। রবিবার সকালে বাড়ির পাশে একটি গাছে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখা যায় তাঁর দেহ। প্রতিবেশীরা জানান, মাত্র ২০ দিন আগে তাঁর একটি সন্তান হয়েছে। নাগরিকপঞ্জি প্রকাশের পর একাধিক বার তিনি ফরেনার্স ‌ট্রাইবুনালের (এফটি) দ্বারস্থ হয়েছিলেন। মা শান্তি চন্দের নাম ডি-ভোটার সংক্রান্ত্র মামলায় আটকে পড়ায় তিনি বারবার ট্রাইবুনালে গিয়ে দরবার করেন। কিন্তু প্রতিবারই তাঁকে খালি হাতে ফিরতে হয়।

এক প্রতিবেশী জানান, “মায়ের ডি-ভোটার মামলার নিষ্পত্তিতে নিজের গচ্ছিত সমস্ত অর্থই বিনয় খরচ করে ফেলেচিলেন। এরই মধ্যে নাগরিকপঞ্জি থেকে নিজের নাম বাদ পড়ার ঘটনায় সম্পূর্ণ ভাবে ভেঙে পড়েন। এক দিকে সর্বস্বান্ত হয়ে যাওয়া, অন্য দিকে আইনি অধিকার হারানোর চাপ সহ্য করতে না পেরে গলায় দড়ি দিয়ে আত্নহত্যার পথ বেছে নেন তিনি”।

অন্য এক প্রতিবেশী জানান, “বিনয় ছিলেন খুবই নম্র প্রকৃতির। গত কয়েক দিন ধরে তিনি বাড়ির বাইরে খুব একটা বের হচ্ছিলেন না। একটা ২০ দিনের শিশুকে রেখে চলে গেলেন সেই যুবক… কে জানে এ বার তাঁর পরিবারের সঙ্গে কী হবে”?

আরও পড়ুন: সাত বছরের বালককে ‘বিদেশি’ তকমা দিল এনআরসি, বন্ধ স্কুলে যাওয়া

উল্লেখ্য, গত ৩০ জুলাই কেন্দ্রের তরফে দ্বিতীয় দফার খসড়া নাগরিকপঞ্জি প্রকাশ করা হয়। মোট ৩,২৯,৯১,৩৮৪ জন আবেদনকারীর মধ্যে তালিকায় নাম তোলার যোগ্যতা অর্জন করেন ২,৮৯,৮৩,৬৭৭ জন। সরকারি ঘোষণা মতে, আবেদনকারী নাগরিকদের মধ্যে ৪,০০৭,৭০৭ জনের নাম ছেঁটে ফেলা হয় তালিকা থেকে। পাশাপাশি ৩৭,৫৯,৬৩০টি আবেদন বাতিল করা হয় এবং বাকি ২,৪৮,০৭৭টি আবেদন ধরে রাখা হয়।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন