গ্রামবাসী ৭০ বছরের রামশরণ। তিনি বলেন, শ্যামলালের এত বছরের পরিশ্রমের সাক্ষী তিনি। এই পুকুর এখন সকলে ব্যবহার করে। গোটা গ্রাম তাঁর কাছে কৃতজ্ঞ। এই সাজা পাহাড় গ্রামটা মহেন্দ্রগড়ের চিরিমিড়ির কাছে। একেবারেই অনুন্নত অঞ্চল। বিদ্যুত দূরঅস্ত্‌, যাতায়াত ব্যবস্থাও তথৈবচ।  জলের জন্য ভরসা মাত্র দু’টি কুয়ো। সম্প্রতি এলাকার বিধায়ক শ্যামবিহারী জয়সওয়াল এলাকা পরিদর্শনে আসেন। আশ্চর্যের বিষয়, যে কাজ সরকারের করা উচিত ছিল, সেই কাজ না করে মাত্র ক’টা টাকা পুরস্কার দিয়েই যাবতীয় দায় ঝেড়ে ফেলতে বর্তমান সরকারের এই প্রতিনিধি। শ্যামলালের এত বছরের পরিশ্রমের পারিশ্রমিক হিসেবে তাঁকে ১০ হাজার টাকা পুরস্কার দেন বিধায়কমশাই। কোরিয়ার জেলাশাসক নরেন্দ্র দুজ্ঞল তাঁকে যাবতীয় সাহায্যের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।]]>

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন