note

ওয়েবডেস্ক: বরেলির একটি এটিএমের ঘটনা শুনে তাজ্জব বনে যাচ্ছে গোটা দেশ। সুভাষনগর এলাকায় ইউনাইটেড ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়ার একটি এটিএমে টাকা তুলতে যান অশোক পাঠক নামে এক ব্যক্তি। তিনি যথারীতি এটিএম থেক নিজের চাহিদা মতো ৪,৫০০ টাকা তোলেন। এর মধ্যে পাওয়া একটি পাঁচশো টাকার নোট দেখে তিনি হাসবেন না কাঁদবেন-সেটাই ভুলতে বসেছিলেনষ

অনেক সময় মেলায় গিয়ে বাচ্চা নকল নোট কেনার জন্য আবদার করে থাকে। আসল নোট দিয়ে সেই নকল নোট কিনতেও দেখা যায়। কিন্তু এটিএম থেকে যে ঠিক একই রকমের নকল নোট বের হবে, তা ঘূণাক্ষরেও টের পাওয়া মুশকিল।

অশোক যে পাঁচশো টাকার নোটটি ওই নির্দিষ্ট এটিএম থেকে পেয়েছেন, সেটি রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়ার পরিবর্তে লেখা রয়েছে চিলড্রেন ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া।

আরও পড়ুন: ‘রিজার্ভ ব্যাঙ্ক’-এর বদলে ‘চিলড্রেন্স ব্যাঙ্ক’, জাল ২০০০ এটিএম থেকে

সংবাদ সংস্থা এএনআইকে অশোক জানান, তিনি শুধু এক মাত্র ব্যক্তি নন, যিনি এই চিলড্রেন ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়ার নোট পেয়েছেন। তিনি পাওয়ার পরই চিৎকার করে লোক জড়ো করেন। এর পর আগ্রহী অন্য এক ব্যক্তিও ওই এটিএম থেকে টাকা তুললে দেখা যায় ২০০০ টাকার মধ্যে একটি পাঁচশো টাকার নোট চিলড্রেন ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়ার। যেগুলির মার্কিং-এর জায়গায় লেখা ‘চুরন লেবেল’ এবং আরবিআইয়ের সিলের জায়গায় ‘পিকে’ লোগো।

একই ভাবে তৃতীয় ব্যক্তি ইন্দ্রকুমার শুক্লাও ওই নোট পান। তাঁর এটিএম থেকে টাকা তোলার দৃশ্যটি ক্যামেরাবন্দি করা হয়। যে ভিডিও এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে।

এ ব্যাপারে ব্যাঙ্ক বা গ্রাহকের মাঝে থাকা তৃতীয় পক্ষ অর্থাৎ ওই এটিএমে টাকা সরবরাহকারী এজেন্সিকেই সন্দেহ করা হচ্ছে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here