mumbai hoarding
ছবি: ডিএনএ ইন্ডিয়া

ওয়েবডেস্ক: ‘শিবড়ে, আই অ্যাম সরি!’ শুধু এটুকু লিখেই বছর পঁচিশের ব্যবসায়ী নীলেশ খেড়কর প্রেমিকার উদ্দেশে ৩০০টা হোর্ডিং লাগিয়েছিলেন মুম্বইয়ের পিম্পরি চিনচড় এলাকায়। এর জন্য খরচ পড়েছিল ৭২,০০০ টাকা। প্রেমিকার মানভঞ্জন হয়েছে কি না, তা প্রশ্নাতীত! কিন্তু পুলিশের কোপে বিলক্ষণ পড়েছেন ওই মুম্বইকর। খবর বলছে, ওয়াকড় থানার পুলিশ এই ঘটনার জন্য মামলা ঠুকেছেন তাঁর নামে।

জানা গিয়েছে, শুক্রবার সকালে ওই এলাকার লোকেরা পথে বেরিয়ে কয়েক পা অন্তর অন্তর ওই হোর্ডিংগুলো দেখেন। খবর অনুযায়ী, ওই দিন ওই অঞ্চলে নীলেশের প্রেমিকার আসার কথা ছিল। তার আগে এক প্রস্থ ঝগড়াও হয়েছিল জুটির মধ্যে। তাই মানভঞ্জনের এমন অভিনব উপায় মাথা খাটিয়ে বের করেছিলেন নীলেশ।

আরও পড়ুন: বুধবার থেকে সময় পালটাচ্ছে দক্ষিণপূর্ব রেলের বেশ কিছু ট্রেনের, জানুন বিস্তারিত

কিন্তু ওটাই আপাতত আপত্তির কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে পুলিশের কাছে। ওয়াকড় থানার পুলিশ ওই অঞ্চলের ট্রাফিক পুলিশকে নীলেশের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিয়ে মামলা ঠুকেছে। তাঁর নামে আনা হয়েছে অবৈধ হোর্ডিং লাগানো এবং জনতার সম্পত্তির দুর্ব্যবহারের অভিযোগ। ওই হোর্ডিংগুলো যিনি লাগিয়েছেন, সেই সংস্থার মালিক তথা নীলেশের বন্ধু বিলাস সিন্দেকে খুঁজে বের করে এই বৃত্তান্ত জানতে পেরেছে পুলিশ। পুলিশের পাশাপাশি পুরসভাও এ ব্যাপারে খেড়করের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণে উদ্যোগী বলে খবর!

দেখা যাক, প্রেমিকার পরে এ বার পুলিশ আর পুরসভার মানভঞ্জন কী ভাবে করেন খেড়কর! কিন্তু আপনার কী মনে হয়- পুলিশের এই অভিযোগকে কি আদৌ যুক্তিসঙ্গত বলা যায়?

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন