modi greets manmohan

নয়াদিল্লি: মেলালেন তিনি মেলালেন। না, যিনি মিলিয়েছেন তিনি কোনো ব্যক্তি নন, বরং ভারতের গণতন্ত্রের পীঠস্থান। তার ওপর জঙ্গি হামলার বার্ষিকীই মিলিয়ে দিল যুযুধান নরেন্দ্র মোদী এবং মনমোহন সিংহকে।

গুজরাত নির্বাচনকে ঘিরে কংগ্রেস এবং বিজেপির মধ্যে কাদা ছোড়াছুড়ি চলছিলই। সেই ঝগড়ায় নতুন মাত্রা যোগ করে পাকিস্তান প্রসঙ্গ। নির্বাচনী প্রচারে বারবার পাকিস্তান প্রসঙ্গ নিয়ে আসছিলেন মোদী। বুঝিয়ে দিচ্ছিলেন কী ভাবে কংগ্রেস ‘পাকিস্তানের বন্ধু’ হয়ে উঠছে। প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে ঠারেঠোরে দেশদ্রোহীও বোঝাতে চেয়েছিলেন মোদী।

বেশির ভাগ সময়ে চুপ থাকতেই পছন্দ করেন মনমোহন। কিন্তু এ বার আর চুপ থাকতে পারেননি। রীতিমতো প্রেস বিবৃতির মাধ্যমে মোদীর সব অভিযোগ খণ্ডন করার পাশাপাশি জানিয়ে দেন নিজের মন্তব্যের জন্য ক্ষমা চাইতে হবে মোদীকে।

এটা ছিল দিন তিনেক আগের ছবি। তিন দিন পরে পরিস্থিতি কিছুটা বদলাল। সংসদে বর্তমানের সঙ্গে দেখা হল প্রাক্তনের। শুভেচ্ছা বিনিময়ও হল। মনমোহনের বলা ‘নমস্কার’ বিনিময়ে প্রাক্তনের সঙ্গে করমর্দন করেন মোদী।

বুধবার সংসদ হামলার ১৬তম বার্ষিকী পালিত হল। ২০০১ সালের এই দিনেই সংসদে হামলা চালায় পাঁচজন সশস্ত্র জঙ্গি। তাদের গুলিতে প্রাণ হারান দিল্লি পুলিশের পাঁচ জন কর্মী, সিআরপিএফ-এর এক মহিলা কর্মী, সংসদের দুই নিরাপত্তারক্ষী, এক মালি এবং এক ক্যামেরাম্যান। মৃতদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানান।

মনমোহন মোদী ছাড়াও এ দিন সংসদে উপস্থিত ছিলেন বেঙ্কাইয়া নাইড়ু, সুমিত্রা মহাজন, লালকৃষ্ণ আডবাণী, সনিয়া এবং রাহুল গান্ধী।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here