kobad ghandy

ওযেবডেস্ক:  আট বছরেরও বেশি সময় জেল খেটে জামিন পেলেন সিপিআই(মাওবাদী) দলের সাবেক পলিটব্যুরো সদস্য কোবাড ঘান্ডি। মঙ্গলবার রাতে অন্ধ্রপ্রদেশের বিশাখাপত্তনম জেল থেকে জামিনে মুক্ত হন তিনি। গত এপ্রিল মাস থেকে ওই জেলেই ছিলেন কোবাড। তার আগে কিছুদিন ছিলেন হায়দরাবাদের কাছে একটি জেলে। তার আগে দীর্ঘ সময় কাটিয়েছেন দিল্লির তিহার জেলে। ২০০৯ সালে দিল্লি পুলিশের বিশেষ সেল গ্রেফতার করে কোবাডকে। প্রায় ১৪টি মামলায় অভিযুক্ত তিনি। সব কটিতে জামিন মেলার প্রক্রিয়া শেষ হতেই জেল থেকে বেরোলেন এই মাওবাদী নেতা।

সত্তর দশকের শেষে নকশালপন্থী আন্দোলনে যুক্ত হন দুন স্কুল এবং মুম্বইয়ের এলফিনস্টোন কলেজের ছাত্র কোবাড ঘান্ডি। মুম্বইয়ের ধনী ব্যবসায়ী পরিবারের ছেলে কোবাড বিলেতেও পড়াশোনা করেছেন। সিপিআইএমএল(জনযুদ্ধ গোষ্ঠী) যখন মহারাষ্ট্রে পা রাখে, সেই সময় থেকেই ওই দলের হয়ে কাজ করা শুরু করেন। তাঁর স্ত্রী প্রয়াত অনুরাধা ঘান্ডিও মাওবাদীদের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ছিলেন।

হৃদযন্ত্রের সমস্যা, প্রস্টেটের ক্যানসার, বাত সহ একগাদা রোগে আক্রান্ত কোবাড ২০১৫ সালে তিহার জেলে জেল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে অনশন করেন। তাঁর অভিযোগ ছিল, তিনি অসুস্থ হওয়া সত্ত্বেও নয় মাসের মধ্যে কর্তৃপক্ষ তিনবার তাঁর সেল বদল করিয়েছেন। এটা আসলে তাঁকে ধীরে ধীরে মেরে ফেলার চক্রান্তের অঙ্গ।

জেল থেকে নিয়মিত বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় লেখালিখি করতেন কোবাড। জামিন পেয়ে তিনি তাঁর মুম্বইয়ের বাড়িতে গিয়েছেন।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here