sunny leone

ওয়েবডেস্ক: বিদ্যুৎ পুড়বে, টাকা উড়বে, নাচবেন সানি লিওন। ব্যস, এটুকুতেই থেমে যাওয়ার মতো ছিল ব্যাপারটা। কিন্তু বেঙ্গালুরুর এক রাজনৈতিক যুব সংগঠনের হুমকি- সানি তাঁদের শহরে নাচলেই তাঁরা শামিল হবেন গণআত্মহত্যায়!

জানা গিয়েছে, বেঙ্গালুরুর এক অনুষ্ঠানে বছর শেষের রাতে নাচার কথা ছিল সানি লিওনের। তা সংস্কৃতি না অপসংস্কৃতি – এই নিয়ে বিরোধ চলছে বেশ কয়েক দিন ধরেই। এ বার তা ধারণ করল চূড়ান্ত রূপ। সরাসরি আত্মহত্যার হুমকি এল কর্নাটক রক্ষণ বেদিকে যুব সেনার সদস্যদের তরফে। সাফ জানিয়ে দিলেন দলীয় যুবকেরা, সানি লিওন যদি নাচেন, তবে তাঁরা সবাই মিলে আত্মহত্যা করবেন!

দলটির সভাপতি সইদ মির্জার বক্তব্য, “সানি লিওনের পূর্ব-জীবন সংস্কৃতি-বিরোধী। আমরা সবাই জানি সানি লিওন কে, ওর ইতিহাস আমাদের জানতে বাকি নেই! সেই জন্যই আমরা চাই না, সানি আমাদের শহরে পা রেখে তার সংস্কৃতি তছনছ করে দিক”, বলছেন তিনি।

যদিও সানির নাচের বিষয়টি নিয়ে কিঞ্চিৎ দ্বিধায় আছে কর্নাটকের রাজনৈতিক দলগুলি। এক দিকে যখন এ রকম হুমকি আসছে, অন্য দিকে তেমনই শোনা যাচ্ছে মধ্যপন্থা অবলম্বনের কথাও। “আসল আপত্তি তো সানির ছোটো পোশাক নিয়ে! তিনি যদি শাড়ি পরে, ভদ্র-সভ্য ভাবে নাচেন, তবে আপত্তির কোনো কারণই থাকবে না। এমনকি কথা দিচ্ছি, আমি নিজেও আমার দলের লোকদের নিয়ে সেই নাচ দেখতে যাব”, দাবি হরিশ নামের এক কর্নাটক রক্ষণ বেদিকে যুব সেনার সদস্যের!

আর তা যদি না হয়?

“সে ক্ষেত্রে নিশ্চিত থাকুন, ৩১ ডিসেম্বরের রাতে আমরা গণআত্মহত্যায় শামিল হতে এতটুকুও দ্বিধা করব না। সানিকে তার আগের কাজকর্মের সংশোধন করতেই হবে। এ রকম মানসিকতাকে তো আর আমরা প্রশ্রয় দিতে পারি না”, সরব হরিশ!

স্বাভাবিক ভাবেই কর্নাটক রক্ষণ বেদিকে যুব সেনার সদস্যদের এই প্রতিবাদ অনুষ্ঠানটির উদ্যোক্তাদের পক্ষে প্রমাদের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। ‘সানি নাইট ইন বেঙ্গালুরু নিউ ইয়ার্স ইভ ২০১৮’- এই মর্মে বিরাট বিরাট বিজ্ঞাপন ছেপেছেন তাঁরা। বিস্তর টাকা খরচ করে ব্যবস্থা করেছেন অনুষ্ঠান যাতে জমাটি হয়! শুরু হয়ে গিয়েছে টিকিট বিক্রিও। ফলে, তাঁদের গলায় এখন ধরা দিয়েছে বিপন্নতার সুর।

“কেউ বুঝতে চাইছেন না যে আমরাও সংস্কৃতির প্রতি সমান ভাবেই শ্রদ্ধাশীল। আমরা এক পারিবারিক অনুষ্ঠানেরই আয়োজন করেছি। সানিও অন্য জায়গা থেকে অনেক বেশি টাকার বিনিময়ে অনুষ্ঠান করার প্রস্তাব পেলেও রাজি হয়েছেন বেঙ্গালুরুতেই শো করতে! কেন না, বেঙ্গালুরু আর হায়দরাবাদ তাঁর প্রিয় শহর! জানি না এ বার কী হবে”, বলছেন উদ্যোক্তারা!

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here