নয়াদিল্লি : নিজেদের প্রাণ বাঁচাতে নিজেদের গাঁটের কড়িই খরচ করতে হবে রেলযাত্রীদের। প্রকারান্তরে ‘মাছের তেলেই মাছ ভাজা’র এমনই ব্যবস্থার কথা চিন্তা করছে ভারতীয় রেল।

রেলের যাত্রী সুরক্ষা নিশ্চিত করতে ‘সেফটি সেস’-এর নামে বাড়তে পারে রেলের ভাড়া। তবে রেল মন্ত্রক সূত্রের খবর, এই ব্যাপারে এখনও চূড়ান্ত কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। দুর্ঘটনা রুখতে, নিরাপত্তার স্বার্থে রেলের বিশেষ তহবিল ‘রাষ্ট্রীয় রেল সুরক্ষা কোষ’ গড়ার লক্ষ্যে অর্থ মন্ত্রকের কাছে আর্জি জানিয়ে ছিল রেল মন্ত্রক। এই তহবিলের জন্য ১ লক্ষ ১৯ হাজার ১৮৩ কোটি টাকা দেওয়ার আর্জি জানিয়ে অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলিকে চিঠি দেন রেলমন্ত্রী সুরেশ প্রভু। কিন্তু সেই আর্জি খারিজ করে দিয়েছে অর্থ মন্ত্রক। অর্থমন্ত্রক রেলকে জানিয়েছে, বরাদ্দ অর্থের ২৫ শতাংশ অর্থ তারা দিলেও বাকি ৭৫ শতাংশ অর্থ জোগাড় করার দায়িত্ব রেলের নিজের। সেই অনুসারেই যাত্রীভাড়া বাড়িয়ে তহবিলের বাকি টাকা পূরণ করার কথা চিন্তা করছে রেল।

রেলমন্ত্রী এই মুহূর্তে ভাড়া বাড়ানোর বিষয়ে ইচ্ছুক নন। কারণ, ভাড়া বাড়ার ফলে এর আগেই এসি টু টায়ার ও এসি ফার্স্ট ক্লাসের টিকিট বিক্রির পরিমাণ কমে গেছে। কিন্তু উপায় না থাকলে থ্রি টায়ার ও সেকেন্ড ক্লাসের ভাড়া বাড়িয়ে সেই তহবিল তৈরি করতে হবে বলে মনে করছে মন্ত্রক।

এই সুরক্ষা তহবিলের সাহায্যে রেলের নিরাপত্তা বাড়াতে লেভেল ক্রসিং, রেল ব্রিজ, রেল ট্র্যাক, সিগন্যাল পোস্ট সব কিছুরই রক্ষণাবেক্ষণ করা হবে। এর ফলে রেলের গতিও বাড়বে। পাশাপাশি যে সমস্ত এলাকায় অসংরক্ষিত লেভেল ক্রসিং রয়েছে সেগুলোও বন্ধ করে দেওয়া হবে বলে জানা যাচ্ছে।

ভারতীয় রেলের এখন ‘ভাঁড়ে মা ভবানী’ অবস্থা। তার উপর আবার প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্ন পূরণের জন্য কোটি কোটি টাকা খরচ করতে হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্ন সেই বুলেট ট্রেন চড়ার ক্ষমতা দেশের কত জন মানুষের আছে, সে প্রশ্ন না তোলাই ভালো। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী চান বলে কথা। সুতরাং কোন কাজে অগ্রাধিকার দেওয়া উচিত সেই ব্যাপারটাই ঘুলিয়ে ফেলেছে রেল। এরই মধ্যে বেশ কিছু দুর্ঘটনার পরে সামনে চলে এসেছে যাত্রী সুরক্ষার প্রশ্ন, যে বিষয়টিকে আর উপেক্ষা করতে পারছে না রেল। তাই ‘রাষ্ট্রীয় রেল সুরক্ষা কোষ’ গড়ার ভাবনা মাথায় আসে। কিন্তু এখন দেখা যাচ্ছে সুরক্ষা নিশ্চিত করতে যাত্রীদের নিজেদেরই পকেট থেকে টাকা গুনতে হবে।  দেখা যাক, যাত্রী সুরক্ষার লক্ষ্য পূরণে আদৌ রেলের ভাড়া বাড়ানো হয় কি না আর নতুন ব্যবস্থায় দুর্ঘটনা কতটা কমে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here