নয়াদিল্লি: যা আন্দাজ করা হচ্ছিল তা-ই হল। দলিতের বদলে দলিত তাসই খেলল বিরোধীরা। রামনাথ কোবিন্দের পালটা হিসাবে রাষ্ট্রপতিপদে মীরা কুমারকে প্রার্থী করল তারা। বৃহস্পতিবার নয়াদিল্লিতে বিরোধী দলেগুলির বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত হয়।

রাষ্ট্রপতিপদে নিজেদের পছন্দের প্রার্থী বাছাইয়ের জন্য এ দিন বৈঠকে বসে কংগ্রেস-সহ সতেরোটি বিরোধী দল। সেখানেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় রাষ্ট্রপতি হিসেবে প্রাক্তন লোকসভা স্পিকার মীরা কুমারকেই সমর্থন করবে বিরোধীরা।

উল্লেখ্য, এক জন দলিতকে রাষ্ট্রপতি পদের প্রার্থী করে বিজেপি যে চাল দিয়েছিল তারই পালটা দিল বিরোধীরা। কিংবদন্তি দলিত নেতা তথা স্বাধীনতা সংগ্রামী জগজীবন রামের কন্যা মীরা কুমার ২০০৪ থেকে ২০০৯ পর্যন্ত ইউপিএ সরকারের আমলে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ছিলেন। ২০০৯-এর নির্বাচনে ফের ইউপিএ ক্ষমতায় আসার পর তাঁকে লোকসভা স্পিকার করা হয়। দেশের প্রথম মহিলা স্পিকার হিসেবে ইতিহাস সৃষ্টি করেছিলেন মীরা।

এমনিতে রামনাথ কোবিন্দকে প্রার্থী করে বিরোধী শিবিরে কিছুটা ভাঙন ধরিয়েছে বিজেপি। তবে বিরোধীদের এই সিদ্ধান্তের ফলে কিছুটা চাপে পড়বেন নীতীশ কুমার। ‘মহাদলিত’ ভোটব্যাঙ্কের কথা মাথায় রেখে উত্তরপ্রদেশের রামনাথকে সমর্থনের কথা ঘোষণা করেছেন তিনি। কিন্তু বিরোধী প্রার্থী বিহারজাত হওয়ায় তিনি তাঁর সিদ্ধান্ত পাল্টান কি না সেটাই দেখার।

ঝামেলায় সপা

এ দিকে রাষ্ট্রপতি পদে কাকে সমর্থন করবে সে ব্যাপারে মহা ফাঁপরে পড়েছেন সমাজবাদী পার্টির সাংসদ-বিধায়করা। এমনিতে পিতা-পুত্রের ঝামেলার মধ্যেই উত্তরপ্রদেশে নির্বাচনে যায় সমাজবাদী পার্টি। কিন্তু নির্বাচনে শোচনীয় হারের পর দূরত্ব আরও বাড়ে মুলায়ম এবং অখিলেশের মধ্যে।

প্রসঙ্গত, কোবিন্দকেই সমর্থন করার ইঙ্গিত দিয়েছেন মুলায়ম। নরেন্দ্র মোদীর জন্য রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের দেওয়া নৈশভোজে যোগ দিয়ে সেই জল্পনা আরও বাড়িয়েছেন মুলায়ম। মজার ব্যাপার নৈশভোজের ঠিক আগের দিন অখিলেশের দেওয়া ইফতার পার্টিতে যাননি তিনি।

যদিও তিনি কাকে সমর্থন করবেন সে ব্যাপারে এখনও মুখ খোলেননি অখিলেশ। রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী নিয়ে বিরোধীদের ডাকা বৈঠকের পরেই নিজের সিদ্ধান্ত জানাবেন বলে জানিয়েছেন তিনি। কিন্তু পিতার অমতে গিয়ে গত নির্বাচনে কংগ্রেসের সঙ্গে জোট করা অখিলেশের সমর্থন যে বিরোধী প্রার্থী, এ ক্ষেত্রে মীরা কুমারের প্রতিই থাকবে তা আন্দাজ করাই যায়।

সপার সাংসদ-বিধায়করা কী করবেন এখনও জানা না গেলেও, দলের এক নেতা বলেন, “দলের সভাপতি (অখিলেশ) যা নির্দেশ দেবেন, তাই আমরা পালন করব।”

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here