দিল্লির নেতারা কুকুরের মৃত্যুতে শোক জানান, কিন্তু কৃষকের মৃত্যু নিয়ে মাথা ঘামান না: মেঘালয়ের রাজ্যপাল

0
Meghalaya Governor
মেঘালয়ের রাজ্যপাল সত্য পাল মালিক। ছবি twitter থেকে নেওয়া।

কৃষকদের আন্দোলন সমর্থন করার জন্য তাঁর সমালোচনা করা হলে তিনি পদত্যাগ করতে প্রস্তুত, বলেন সত্য পাল মালিক।

জয়পুর: “একটা কুকুর মারা গেলে দিল্লির নেতারা শোক জানান, কিন্তু কৃষকরা মারা গেলে তাঁদের কিছু আসে যায় না”, এমনই মন্তব্য করলেন মেঘালয়ের রাজ্যপাল সত্য পাল মালিক। একই সঙ্গে তিনি এ-ও জানিয়ে দিতে ভোলেননি যে কৃষকদের আন্দোলন সমর্থন করার জন্য তিনি তাঁর পদ থেকে সরে যেতেও রাজি।

দিল্লির যে প্রকল্পটি কার্যত প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ব্যক্তিগত আগ্রহে গড়ে উঠছে কেন্দ্রের সেই সেন্ট্রাল ভিস্টা পুনরুন্নয়ন প্রকল্পেরও সমালোচনা করেন সত্য পাল মালিক। তিনি বলেন, নতুন সংসদ ভবন না গড়ে একটা বিশ্বমানের কলেজ গড়লে অনেক ভালো হত।

মেঘালয়ের রাজ্যপাল প্রায়ই বিতর্কিত মন্তব্য করে থাকেন। এর আগে জম্মু-কাশ্মীর ও গোয়ার রাজ্যপাল থাকাকালীনও বিতর্কিত মন্তব্য করেছেন। কেন্দ্রের ও রাজ্যের বিজেপি সরকারগুলির সমালোচনা করেছেন, কখনও সরাসরি, কখনও আবার ঠারেঠোরে। এ বার কৃষকদের আন্দোলনে কেন্দ্রের ভূমিকার কড়া নিন্দা করলেন।

নরেন্দ্র মোদী প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীনই সত্য পাল মালিক জম্মু-কাশ্মীরের রাজ্যপাল হন। তার পর সেখান থেকে গোয়া হয়ে এখন তিনি মেঘালয়ের রাজ্যপাল।

রবিবার জয়পুরে অনুষ্ঠিত বিশ্ব জাট সম্মেলনে বক্তৃতা দিচ্ছিলেন মেঘালয়ের রাজ্যপাল। তিনি বলেন, তিনি যদি কৃষকদের নিয়ে দু’চার কথা বলেন, তা হলেই বিতর্কের সৃষ্টি হবে। দিল্লির দু’তিন জন নেতা আমাকে রাজ্যপাল করেছেন। “তাঁরা যে দিনই আমাকে নিয়ে তাঁদের সমস্যা আছে এবং আমাকে যদি ছেড়ে দিতে বলেন, আমি এক মিনিটও সময় নেব না।”

“আমি জন্মসূত্রে রাজ্যপাল নই। আমার যা আছে, তা হারাতে আমি সব সময়ই প্রস্তুত। কিন্তু আমি আমার বিশ্বাস ত্যাগ করতে পারি না। আমি আমার পদ ছেড়ে দিতে পারি কিন্তু কৃষকদের দুর্দশা ও পরাজয় দেখা আমার পক্ষে সম্ভব নয়”, বলেন মালিক।

তিনি বলেন, এর আগে দেশে এমন কোনো আন্দোলন হয়নি, যেখানে ৬০০ লোক মারা গেছে। কৃষি আইনের বিরুদ্ধে প্রায় এক বছর ধরে আন্দোলন চালানো কৃষকরা দিল্লির সীমানায় অবস্থান করে যে ভাবে নানা কারণে মৃত্যু বরণ করেছেন, পরোক্ষে তারই কথা বলেন মেঘালয়ের রাজ্যপাল।

তিনি বলেন, “একটু কুকুর মারা গেলেও দিল্লির নেতারা শোকবার্তা পাঠান। অথচ ৬০০ কৃষক মারা গেলেন, সংসদে একটা প্রস্তাবও নেওয়া হল না। ব্যাপারটা আমাকে খুব আহত করেছে।”

১৯৮৪ সালে শিখ দেহরক্ষীদের গুলিতে ইন্দিরা গান্ধীর মৃত্যুর কথাও উল্লেখ করেন মালিক। তিনি বলেন, আমি মোদীকে বলেছি, শিখ আর জাটদের ক্ষুব্ধ করবেন না। আর এঁরাই তো কৃষক আন্দোলন চালাচ্ছেন।

আরও পড়তে পারেন    

টেস্টে বৃদ্ধির কারণে সাড়ে ১১ হাজারে উঠল দৈনিক সংক্রমণ, তবে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা আরও কমল

জব্বর শীত পশ্চিমাঞ্চলে, কলকাতার তাপমাত্রাও আরও কমল

২০১৫-এর পর সব থেকে ভয়াবহ বৃষ্টির কবলে চেন্নাই, আশংকা বন্যারও

শ্রীনগরে নিজের বাড়ির সামনেই পুলিশকর্মীকে গুলি করে হত্যা জঙ্গিদের

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন