mehbooba mufti kashmir

ওয়েবডেস্ক: মেহবুবা মুফতির পিডিপির বিক্ষুব্ধ বিধায়কদের নিয়ে বিজেপির নতুন রাজনৈতিক সমীকরণ ঘিরে জল্পনা তুঙ্গে। মনে করা হচ্ছে অমরনাথ যাত্রা শেষ হওয়ার পরেই কাশ্মীরে নতুন সরকারের ব্যাপারে ঘোষণা করবে বিজেপি নেতৃত্ব। এই পরিস্থিতিতে বিজেপিকে চরম হুঁশিয়ারি দিলেন একদা তাদের জোটসঙ্গী তথা কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি।

মেহবুবার সাফ কথা, এ রকম চললে কাশ্মীরে জঙ্গিবাদ আরও বেড়ে যাবে। সাংবাদিকদের মেহবুবা বলেন, “১৯৮৭ সালে যে রকম হয়েছিল, সে রকম ভাবে যদি মানুষের ভোট দেওয়ার অধিকারকে খর্ব করে দিল্লি, তা হলে পরিস্থিতি ভয়াবহ হয়ে যাবে। তখন যেমন সালাউদ্দিন, ইয়াসিন মালিকরা উঠেছিল, এ বারও সে রকমই কেউ উঠতে পারে।”

উল্লেখ্য, ১৯৮৭-তে কাশ্মীরের বিধানসভা নির্বাচনে ব্যাপক রিগিং করার অভিযোগ ছিল তৎকালীন শাসক কংগ্রেসের বিরুদ্ধে। অনেকের মতে সেই নির্বাচনই কাশ্মীরের রাজনীতিতে এক বিরাট পরিবর্তন নিয়ে আসে। আপাত শান্ত কাশ্মীরে বাড়তে থাকে ভারত-বিরোধী আবেগ। সালাউদ্দিনের হাতে তৈরি হয় জঙ্গি সংগঠন হিজবুল মুজাহিদিন। পাশাপাশি ইয়াসিন মালিক তৈরি করেন বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠন জম্মু কাশ্মীর লিবারেশন ফ্রন্ট।

sajjad lone bjp horse trading

গত মাসেই কাশ্মীরের সরকারের ওপর থেকে সমর্থন প্রত্যাহার করেছে বিজেপি। তার পরেই নতুন সমীকরণ নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে। এই আবহে পিডিপির অনেক বিধায়কই মেহবুবার বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে সুর ছড়িয়েছে। এরই মধ্যে রয়েছেন প্রভাবশালী বিধায়ক তথা শিয়া যাজক ইমরান রাজা আনসারি।

জানা যাচ্ছে, দলের অন্তত ১৫ জন বিধায়ক বিদ্রোহ করেছেন। মেহবুবাকে সতর্ক করে তাঁরা বলেছেন হয় তিনি দলের প্রধানের পদ ছেড়ে দিন, নয়তো দল ভাঙার সাক্ষী থাকুন। যদিও এই বিক্ষুব্ধ নেতাদের মন টানার জন্য তাঁদের সঙ্গে বৈঠক করছেন মেহবুবা। তবে বিজেপির অন্দরের খবর, নতুন সরকারের ঘোষণা করা এখন শুধুমাত্র সময়ের অপেক্ষা।

এই আবহে নিজের দলকে বাঁচানোর জন্যই এই চরম হুঁশিয়ারির পথা বাছলেন মেহবুবা, এমনই জল্পনা বিভিন্ন মহলে।

 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here