ছয় মিনিটের হাঁটা, রেমডেসিভির একদমই না, শিশুদের জন্য কোভিড-নির্দেশিকা জারি করল কেন্দ্র

0
ভাইরাল সংক্রমণের মোকাবিলা আরও ভালো ভাবে করতে পারে শিশুরা। প্রতীকী ছবি

খবরঅনলাইন ডেস্ক: স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের একাংশের ধারণা কোভিডের তৃতীয় ঢেউ যদি আসে, তা হলে তাতে শিশুরাই বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। কারণ ততদিনে ১৮ বছরের ঊর্ধ্বের একটা বড়ো অংশেরই টিকাকরণ হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা।

এমন একটা আশঙ্কা থেকেই তৎপর হয়েছে কেন্দ্র। তড়িঘড়ি কোভিডে আক্রান্ত শিশুদের জন্য গাইডলাইন জারি করল কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক। ‘Comprehensive Guidelines for Management of COVID-19 in Children’- নামক সেই গাইডলাইনে একাধিক নির্দেশিকা দেওয়া হয়েছে।

Loading videos...

রেমডেসিভির ‘না’

এই নির্দেশিকায় বলা হয়েছে বলা হয়েছে, কোভিডে আক্রান্ত শিশুদের ক্ষেত্রে কোনো মতেই  রেমডেসিভির (Remdesivir) ব্যবহার করা যাবে না। এর মূল কারণ হল ১৮ বছরের কম বয়সীদের শরীরে রেমডেসিভির কতটা কার্যকর, সেই বিষয়ে এখনও কোনো তথ্যই মেলেনি।

শিশুদের সাধারণত রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বেশি হলেও কারও কারও শারীরিক অবস্থা খারাপ হতে পারে। সে ক্ষেত্রে ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় কেবলমাত্র নির্দিষ্ট পরিমাণে স্টেরয়েডজাতীয় ওষুধ ব্যবহারের সিদ্ধান্ত নিতে পারেন চিকিৎসকরা। এ ছাড়া খুব তাড়াতাড়ি অক্সিজেন থেরাপি শুরু করার কথাও বলা হয়েছে এই নির্দেশিকায়।

ছয় মিনিটের হাঁটা কী

এ ছাড়াও গাইডলাইনে বলা হয়েছে, ১২ বছরের ঊর্ধ্বের শিশুদের জন্য ছয় মিনিটের হাঁটা পরীক্ষা (6-Minute Walk Test) বেশ কার্যকরী পদ্ধতি। কী এই পদ্ধতি?

চিকিৎসকরা জানাচ্ছেন, ৬ মিনিট হাঁটার পর শিশুদের অক্সিজেন স্যাচুরেশন মাপতে হবে। তা যদি ৯৪ শতাংশের নীচে নেমে যায় বা দৃশ্যত যদি শ্বাসকষ্ট দেখা যায় তা হলে বুঝতে হবে তার অক্সিজেন স্যাচুরেশন কমছে। এ ক্ষেত্রে কোনো সময় নষ্ট না করে তৎক্ষণাৎ শিশুটিকে হাসপাতালে ভরতি করতে হবে।

আরও পড়তে পারেন বিহারের কারণে মৃতের সংখ্যা ব্যাপক ভাবে বাড়ল, তবুও নিয়ন্ত্রণেই ভারতের করোনা পরিস্থিতি

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.