চাঞ্চল্যকর! অসমের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মার বিরুদ্ধে খুনের চেষ্টার মামলা রুজু করল মিজোরাম পুলিশ

0

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রীতিমতো চাঞ্চল্যকর ঘটনা। ভারতের দুই অঙ্গরাজ্যের মধ্যে যে যুদ্ধ যুদ্ধ পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে, তাতে নতুন মাত্রা যোগ করল মিজোরাম পুলিশের একটা পদক্ষেপে। দুই রাজ্যের সীমানায় সংঘর্ষের ঘটনায় অসমের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মার বিরুদ্ধে খুনের চেষ্টা এবং ষড়যন্ত্রের অভিযোগ দায়ের করল মিজোরাম পুলিশ।

হিমন্ত ছাড়াও অসমের চার শীর্ষ পুলিশ আধিকারিক, দু’জন আমলা এবং ২০০ জন অজ্ঞাতপরিচয়ের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেছে তারা। অর্থাৎ কেন্দ্র যতই দুই রাজ্যকে শান্তি বজায় রাখার আবেদন করুক, পরিস্থিতি যে সহজে ঠিক হবে না, সেটা মিজোরাম পুলিশের পদক্ষেপেই পরিষ্কার।

Shyamsundar

গত ২৬ জুলাইয়ের ঘটনার প্রেক্ষিতে মিজোরামের এক পুলিশ ইনস্পেক্টর এফআইআর দায়ের করেছেন এঁদের বিরুদ্ধে। ভারতীয় দণ্ডবিধির একাধিক ধারা, অস্ত্র আইন এবং মিজোরাম কনটেনমেন্ট অ্যান্ড প্রিভেনশন অব কোভিড-১৯ অ্যাক্ট ২০২০-তে মামলা রুজু করা হয়েছে।

কী বলা হয়েছে এফআইআরে

এফআইআরে মিজোরাম পুলিশ জানিয়েছে, অসম পুলিশের আইজিপির নেতৃত্বে ২০০ জনের সশস্ত্রধারী একটি দল জোর করে তাদের পুলিশ ক্যাম্প দখল করতে এসেছিল। মিজোরামের পুলিশ সংখ্যায় কম থাকায় ওই দলের সঙ্গে এঁটে উঠতে পারেনি।

‘দখল করার’ এই খবর পেয়েই কোলাসিবের পুলিশ সুপার তাঁর দলবল নিয়ে ঘটনাস্থলে যান এবং অসম পুলিশের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে বোঝাপড়ার চেষ্টা চালান। কিন্তু অসম পুলিশ তাতে কান দেয়নি। উলটে পুলিশ সুপারকে জানানো হয়, ওই এলাকা অসমের মধ্যে পড়ছে। সেখানে তারা পুলিশ ক্যাম্প তৈরি করতে চায় মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশমতো।

এফআইআরে আরও বলা হয়েছে যে, অসম পুলিশের একটি দল তাঁবু এবং ক্যাম্প বানানোর প্রয়োজনীয় সামগ্রী নিয়ে ঘটনাস্থলে আসে। জোর করে মিজোরামের পুলিশচৌকি দখল করে সেখানে নিজেদের ক্যাম্প বানানোর লক্ষ্য ছিল তাদের।

উল্লেখ্য, গত ২৬ জুলাই অসম-মিজোরাম সীমান্তে এই ঘটনার জেরে অসমের পাঁচ পুলিশকর্মী এবং এক নাগরিকের মৃত্যু হয়েছে বলে দাবি করেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী। অন্য দিকে, মিজোরামের মুখ্যমন্ত্রী জোরামথাঙ্গাও বলেন যে তাঁর রাজ্যের কয়েক জনও এই ঘটনায় প্রাণ হারিয়েছেন। যদিও সংখ্যাটা জানাননি তিনি।

আরও পড়তে পারেন সফর সফল! এ বার দু’মাস অন্তর দিল্লি পাড়ি দেবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন