rajasthan mla ghost

জয়পুর: বৃহস্পতিবারের রাজস্থান বিধানসভার অধিবেশন। কৃষক আন্দোলন এবং দুর্নীতি নিয়ে তীব্র বাদানুবাদ চলছিল সরকার এবং বিরোধী বিধায়কদের মধ্যে। এর মধ্যেই আরও একটা দাবি উঠল। ‘অশুভ আত্মার ছায়া’ থেকে বিধানসভা ভবনকে মুক্ত করার জন্য হোমযজ্ঞের দাবি করলেন বিধায়করা।

কিছু দিন আগেই বিজেপির দুই বিধায়ক কীর্তি কুমারী এবং কল্যাণ সিংহের মৃত্যু হয়েছে। এর পরেই ‘অশুভ আত্মা’ ঘুরে বেড়ানোর কথা আরও বেশি করে উঠেছে বিধায়কদের মধ্যে। উল্লেখ্য, বিধানসভা ভবনটি একটি পরিত্যক্ত সমাধিস্থলে তৈরি। হোমযজ্ঞ করার দাবি তুলেছেন বিজেপিরই দুই বিধায়ক হবিবুর রহমন এবং কালুলাল গুর্জর।

এই ব্যাপারে মুখ্যমন্ত্রী বসুন্ধরা রাজে সিন্ধিয়ার সঙ্গে আলোচনা করেছেন রহমন। সিন্ধিয়াকে তিনি বলেছেন, কল্যাণ সিংহের ‘আত্মা’ বিধানসভা ভবনে ঘুরে বেড়াচ্ছে। উল্লেখ্য, ২০০১-এ নতুন ভবনে স্থানান্তরিত হয়েছে বিধানসভা।

গত বুধবারই মারা যান বিজেপির নাথদ্বারের বিধায়ক কল্যাণ সিংহ। গত বছর আগস্টে মারা গিয়েছিলেন মণ্ডলগড়ের বিধায়ক কীর্তি কুমারী। কুমারীর ছেড়ে যাওয়া আসনে কিছু দিন আগে উপনির্বাচন হয়, যেখানে জিতে যায় কংগ্রেস।

রহমনের বক্তব্যের সঙ্গে সহমত পোষণ করেছেন রাজস্থান বিজেপির মুখ্য সচেতক কালুলাল গুর্জর। তিনি বলেন, “আমি মনে করি সরকার যদি বিধানসভায় একটা পুজো এবং শুদ্ধকরণ অনুষ্ঠান আয়োজন করে তা হলে অশুভ আত্মার থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে।”

তবে বিধায়কদের দাবির সঙ্গে কোনোমতেই একমত নন রাজসভার বিধানসভার সচিব পৃথ্বীরাজ। তিনি বলেন, “আমি গভীর রাত পর্যন্ত বিধানসভায় কাজ করি, কখনও কোনো অশুভ আত্মার উপস্থিতি টের পাইনি। বিধায়কদের ভয় পাওয়ার কোনো কারণ দেখছি না।”

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন