Narendra Modi and Imran Khan
প্রতিনিধিত্বমূলক ছবি

বিশকেক: অনেকেই মনে করেছিলেন, পুরোনো তিক্ততা ভুলে হয়তো বিশকেকে আলোচনার টেবিলে বসতে পারেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। কিন্তু সেটা হল না। দুই রাষ্ট্রপ্রধান টেবিলে একে অপরের সঙ্গে মুখোমুখি বসলেন ঠিকই, কিন্তু কোনো কথা হল না। এমনকি শুভেচ্ছা বিনিময় পর্যন্ত হল না।

বৃহস্পতিবার রাতে নৈশভোজের আয়োজন করেছিলেন কিরগিজস্তানের প্রেসিডেন্ট সুরনবে জিনবেকভ। সাংহাই কোঅপারেশন সামিটে আসা দেশগুলির প্রধানদের নিয়ে নৈশভোজ হয়েছিল। সেই নৈশভোজের টেবিলে যখন মুখোমুখি হলেন মোদী এবং ইমরান, তখন মনে করা হচ্ছিল, হয়তো কিছু শুভেচ্ছা আদানপ্রদান হতে পারে। কিন্তু সেটা হল না।

আরও পড়ুন স্বাস্থ্যে অচলাবস্থা লাইভ: দেশ জুড়ে পথে নামলেন চিকিৎসকরা, স্বস্তির খবর সিউড়িতে

তবে এর আগে চিনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং-এর সঙ্গে বৈঠক করে পাকিস্তানের সম্পর্কে একপ্রস্থ সতর্কবার্তা দিয়ে দিয়েছিলেন মোদী। পাকিস্তান চিনের বন্ধু দেশ। ফলে পাকিস্তানকে বাগে আনার জন্য চিনকেই হাতিয়ার করেছিলেন তিনি। জিনপিংকে সাফ বলেন, “পাকিস্তানের সঙ্গে কোনো আলোচনা শুরু করতে গেলে তাদের সন্ত্রাসবাদ পুরোপুরি নির্মূল করতে হবে। কিন্তু এই মুহূর্তে আমরা সেটা দেখতে পাচ্ছি না। ইসলামাবাদ যদি স্থায়ী ব্যবস্থা নেয়, তবেই আলোচনা শুরু করা যাবে।”

উল্লেখ্য, মোদী পুনরায় ক্ষমতায় আসার পর ইতিমধ্যে দু’বার আলোচনা চেয়ে মোদীকে বার্তা দিয়েছেন ইমরান। পাক বিদেশমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশিও বিশকেকে দ্বিপাক্ষিক আলোচনার জন্য জোর সওয়াল করেছিলেন। কিন্তু সেটা যে এখনই হচ্ছে না, তা বোঝা গেল বৃহস্পতিবার রাতের ওই নৈশভোজের পরে।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন