নয়াদিল্লি: তৃতীয়বারের জন্য মন্ত্রিসভায় রদবদল করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তাঁর রদবদলে উল্লেখযোগ্য হল, প্রতিরক্ষার মতো গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রকের দায়িত্ব পেলেন বিজেপির রাজ্যসভার সাংসদ নির্মলা সীতারামন। ইন্দিরা গান্ধীর পর তিনি হলেন দেশের দ্বিতীয় মহিলা প্রতিরক্ষামন্ত্রী।

তবে, ইন্দিরা গান্ধী প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন দু’বার প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের দায়িত্ব নিয়েছিলেন। প্রথমবার মাত্র ২০ দিনের জন্য এবং দ্বিতীয়বার ২ বছর একদিনের জন্য। সেক্ষেত্রে বলা যেতে পারে পূর্ণ সময়ের মন্ত্রী হিসাবে দেশের প্রতিরক্ষামন্ত্রকের দায়িত্ব নিলেন এই প্রথম কোনো মহিলা।

তৃতীয় দফায় মন্ত্রীসভায় রদবদলে মোদী ১৩জন নতুন মন্ত্রীকে নিয়েছেন।

মনোহর পর্রীকর প্রতিরক্ষা মন্ত্রক ছেড়ে গোয়ার মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে দায়িত্ব নেওয়ার পর এই দায়িত্ব সামলাচ্ছিলেন অরুণ জেটলি। তিনি হঠাৎ ছেড়ে যাওয়ায় বহু কাজ বাকি পড়ে ছিল, যেমন সেনাবাহিনীর সংস্কার, প্রতিরক্ষা সরঞ্জাম উৎপাদনে স্থানীয় উদ্যোগকে চাঙ্গা করা ইত্যাদি। পূর্ব এবং পশ্চিম সীমান্তে চলতি উত্তেজনার মধ্যে খুব স্বাভাবিক ভাবে স্বাধীনভাবে প্রতিরক্ষামন্ত্রকের দায়িত্ব কাউকে দেওয়া জরুরি ছিল।

মন্ত্রিসভায় রদবদলের খবর আসতেই প্রতিরক্ষা মন্ত্রী হিসাবে যে দু’টি নাম ঘুরছিল তা হল নীতিন গডকড়ি এবং অরুণ জেটলি। এরমধ্যে জোরালো হয়েছিল অরুণ জেটলির নাম। কারণ, ডোকালম ইস্যুতে তাঁর সাফল্য। কিন্তু সব জল্পনায় জল ঢেলে নির্মালা সীতারমনকে প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের দায়িত্ব দিলেন মোদি।

নির্মলা ছাড়া প্রতিমন্ত্রী থেকে পূর্ণমন্ত্রী হলেন তিন জন। ধর্মেন্দ্র প্রধান, পীযূষ গোয়েল ও মুকতার আব্বাস নকভি। রেলমন্ত্রী হলেন পীযূষ গোয়েল।

৯ নতুন মন্ত্রীর মধ্যে ২ জন সাংসদ নন। এঁরা হলেন প্রাক্তন আইএফএস হরদীপ পুরী ও প্রাক্তন আইএএস কে জে আলফোন্স। বাকি ৭ জন হলেন অনন্তকুমার হেগড়ে, প্রাক্তন স্বরাষ্ট্র সচিব ও আরার সাংসদ আর কে সিংহ, গজেন্দ্র শেখাওয়াত, মুম্বইয়ের প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার ও বাগপতের সাংসদ সত্যপাল সিংহ, শিবপ্রতাপ শুক্ল, অশ্বিনী চৌবে ও টিকমগড়ের সাংসদ সাংসদ বীরেন্দ্র কুমার। এঁরা সকলেই প্রতিমন্ত্রী।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন