Krishnamurthy-Subramanian

ওয়েবডেস্ক : প্রায় ছ’মাস হয়ে গেল মুখ্য অর্থনৈতিক উপদেষ্টার পদ ছেড়েছেন অরবিন্দ সুব্রহ্মণ্যম। তার পর থেকে এরকম একটি গুরুত্বপূর্ণ পদ ফাঁকাই পড়েছিল। অবশেষে শূন্যস্থান পূর্ণ হল। কৃষ্ণমূর্তি সুব্রহ্মণ্যমকে ওই পদে নিয়োগ করল মোদী সরকার।

বাজেট পেশের আরও দু’মাসও বাকি নেই। লোকসভা ভোটের আগে মোদী সরকারের কাছে এই বাজেট বেশ গুরুত্বপূর্ণ। তার আগে এমন একটা গুরুত্বপূর্ণ পদ ফাঁকা পড়ে থাকা কেন্দ্রের পক্ষে যথেষ্ট অস্বস্তির কারণ। কৃষ্ণমূর্তি সুব্রহ্মণ্যম বর্তমানে ইন্ডিয়ান স্কুল অফ বিজনেস, হায়দরাবাদের, সহকারী অধ্যাপক এবং ডিরেক্টর। তিনি আগামী তিন বছরের জন্য এই পদে বসলেন।

কৃষ্ণমূর্তি সুব্রহ্মণ্যম নোটবন্দির একজন উগ্র সমর্থক। নোটবন্দির পরবর্তী কালে এর পক্ষে একাধিক প্রবন্ধ তিনি লিখেছেন।  তেমনই একটি প্রবন্ধে তিনি লেখেন, ‘নোটবন্দির ফলে ব্যাঙ্ককর্মীরা কয়েক মাস স্ট্রাইক গুটিয়ে রেখে পরিস্থিত স্বাভাবিক করা কাজের হাত লাগিয়েছেন।’ আরও এক জায়গায় তিনি লেখেন, ‘‘সাধারণ মানুষ নীরবে তাদের সৎভাবে উপার্জন করা টাকা ব্যাঙ্ক এবং পোস্ট অফিসে জমা করছেন। অন্যদিকে অধিকাংশ রাজনৈতিক দলগুলি দুহাত তুলে একে (নোটবন্দি) কালো টাকা রাজনীতি বলে চিৎকার করছে।’’

বিশ্বের প্রথম সারির ব্যাঙ্ক বিশেষজ্ঞ কৃষ্ণমূর্তি সুব্রহ্মণ্যম। বন্ধন ব্যাঙ্কের বোর্ডেও তিনি ছিলেন। তাই আরবিআই-কেন্দ্রের টানা পোড়েনের মধ্যে তাঁকে মুখ্য অর্থনৈতিক উপদেষ্টার পদে বসানো যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ। এছাড়াও তিনি একাধিক বহহুজাতিক সংস্থায় কাজ করেছেন।

আরও পড়ুন : দু’রাজ্যে হাড্ডাহাড্ডি, একটি রাজ্য কংগ্রেসের! আর বাকি দুটো? 

রাঘুরাম রাজন যোগ

নোটবন্দির সিদ্ধান্তকে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের প্রাক্তন গভর্নর রাঘুরাম রাজন বলেছিলেন, উন্নয়নের ‘স্পিড ব্রেকার’। তার সঙ্গে যোগসূত্র রয়েছে কৃষ্ণমূর্তি সুব্রহ্মণ্যমের। দু’জনেই চিকাগো থেকে পিএইচডি করেছেন। কাকতালীয় ভাবে রঘুরামের অধীনেই পিএইচডি করেন কৃষ্ণমূর্তি।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here