mehbooba mufti kashmir

শ্রীনগর: ১৯৭৪-এ অসমের কংগ্রেস নেতা দেবকান্ত বরুয়া বলেছিলেন, “ইন্ডিয়া ইজ ইন্দিরা, ইন্দিরা ইজ ইন্ডিয়া”। ৪৩ বছর পর সেই উক্তিটাই আবার ফিরে এল কাশ্মীরের মুখ্যমন্ত্রীর মুখে। এই সময়ের সেরা মানুষ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী হলেও, তাঁর মতে ভারত মানেই ইন্দিরা গান্ধী। এমনই মনে করেন কাশ্মীরের মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি।

কাশ্মীর প্রসঙ্গে একটি আলোচনাসভায় সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে মেহবুবা বলেন, “আমার কাছে ভারত মানে ইন্দিরা গান্ধী। হয়তো আমার কথা অনেকের পছন্দ হবে না। কিন্তু ইন্দিরা মানেই ভারত। আমি যখন বড়ো হচ্ছি, তখন ইন্দিরাকে দেখেই ভারতকে বুঝতে পেরেছি আমি।”

গোটা ভারত এখনও কাশ্মীরকে পুরোপুরি বুঝে উঠতে পারেনি বলে মনে করেন মেহবুবা। তাঁর কথায়, “আমি সেই ভারতকে দেখতে চাই যে কাশ্মীরের জন্য কাঁদে, কাশ্মীরের মানুষের সমস্যাগুলো বুঝতে পারে। কাশ্মীর একটা বৈচিত্র্যপূর্ণ রাজ্য। ধর্ম থেকে শুরু করে সব কিছুর মধ্যেই বৈচিত্র্য রয়েছে। আমি বলব, কাশ্মীর হল ভারতের মধ্যে একটা ছোটো ভারত।”

৩৫এ ধারায় কাশ্মীরের জনগণের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা দিয়ে রেখেছে সংবিধান। এর ধারাতেই কাশ্মীরের জন্য আলাদা পতাকাও রয়েছে। সম্প্রতি এই ধারাটিকে সরিয়ে দেওয়ার দাবি তুলছে কয়েকটি দক্ষিণপন্থী সংগঠন। এই ঘটনা সত্যি হলে সাধারণ কাশ্মীরিরা ভারতবিরোধী হয়ে যেতে পারে আশঙ্কা প্রকাশ করেন মেহবুবা। তিনি বলেন “কাশ্মীরের আলাদা পতাকা রয়েছে, এই ব্যাপারে অনেক মানুষ প্রশ্ন তুলছেন। কিন্তু এই পতাকা ভারতের সংবিধানই আমাদের দিয়েছে। কাশ্মীরের মানুষ দুটো পতাকা নিয়েই চলতে চান, কিন্তু নিজেদের পতাকাকে বিকৃত বা বাতিল করা হলে, ভারতের পতাকা হাতে তোলার কেউ থাকবে না।”

কাশ্মীরের বর্তমান সমস্যা মেটানোর সেরা মানুষ এখন নরেন্দ্র মোদী, এমনই মনে করেন মেহবুবা। “আমার মতে মোদী এই মুহূর্তের সেরা মানুষ। তাঁর নেতৃত্ব একটা সম্পদ, এবং তিনি ইতিহাসের পাতাতেও নাম লেখাতে পারেন। বর্তমান সমস্যা থেকে কাশ্মীরকে বের করে নিয়ে আসার জন্য আমাদের একসঙ্গে কাজ করা প্রয়োজন।”

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন