কাজাখস্থানে শরিফের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময়, জিংপিং-এর সঙ্গে সাক্ষাৎ মোদীর

0
320

আস্তানা: দেড় বছর পর দেখা হল দু’জনের। স্বল্প সাক্ষাতে শুভেচ্ছা বিনিময়ও হল। নরেন্দ্র মোদী এবং নওয়াজ শরিফ। ভারত এবং পাকিস্তানের ক্রমবর্ধমান খারাপ পরিস্থিতির মধ্যে দুই রাষ্ট্রপ্রধানের সাক্ষাৎ তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

কাজাখস্তানের রাজধানী আস্তানায় সাংহাই কো-অপারেশন অর্গানাইজেসশনের (এসসিও) মঞ্চে এই সাক্ষাৎ হয় মোদী এবং শরিফের। সেখানে মোদীর স্বাস্থ্য সংক্রান্ত খোঁজখবর নেন মোদী। একটি সূত্রের মতে, “শরিফের অপারেশনের পর প্রথম বার তাঁর সঙ্গে দেখা হল নরেন্দ্র মোদীর। তিনি তাঁর স্বাস্থ্যসংক্রান্ত খবরাখবর নিয়েছেন। পাশাপাশি পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর মা এবং পরিবারের বাকি সদস্যদের ব্যাপারেও খোঁজ নেন প্রধানমন্ত্রী।” উল্লেখ্য, গত বছর জুনে ওপেন হার্ট সার্জারি হয় শরিফের।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালের ২৫ ডিসেম্বর, শরিফের সঙ্গে শেষ বার সাক্ষাৎ হয় মোদীর। আফগানিস্তান সফর শেষে ভারত ফেরার পথে লাহৌরে কিছুক্ষণের জন্য পা রাখেন প্রধানমন্ত্রী। এর এক সপ্তাহের মধ্যেই পাঠানকোটে জঙ্গি হানা দু’দেশের সম্পর্ককে আবার বিষিয়ে তোলে। তার পর উরি হামলা এবং সীমান্ত উত্তেজনায় ক্রমেই খারাপ হয়েছে পরিস্থিতি।

প্রসঙ্গত ভারত এবং পাকিস্তান দুই দেশকেই এ বার এসসিও-র সদস্যপদ দেওয়া হবে।

সাক্ষাৎ ঝি জিংপিং-এর সঙ্গেও

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতের পরেই চিনা প্রেসিডেন্ট ঝি জিংপিং-এর সঙ্গেও দেখা করেন মোদী। সংক্ষিপ্ত বৈঠকও হয় দুই রাষ্ট্রপ্রধানের মধ্যে। চিনের সঙ্গেও ভারতের সম্পর্কে একটা চাপা উত্তেজনা রয়েছে। সেই আবহেই এই বৈঠকও তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে। উল্লেখ্য, গত মাসে বেজিং-এ আয়োজিত বেল্ট অ্যান্ড রোড ফোরাম বয়কট করে ভারত। সেই সম্মেলনে হাজির ছিল ২৯টি দেশ। চিন-পাকিস্তান অর্থনৈতিক করিডরের প্রতিবাদে সেই সম্মেলন বয়কট করে ভারত।

বৈঠকের পর বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র গোপাল বাগলে টুইট করে জানান, “এসসিও সম্মেলনের বাইরে আলাদা করে বৈঠক করেছেন ভারত এবং চিনের রাষ্ট্রপ্রধান”। উল্লেখ্য, সামনের মাসে জার্মানিতে জি ২০ সম্মেলনের বাইরেও সাক্ষাৎ হওয়ার কথা মোদী এবং জিংপিং-এর।

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here