ওয়েবডেস্ক: ২০১৪ সালে ক্ষমতায় আসার সময়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর অন্যতম প্রতিশ্রুতি ছিল দেশের সব গ্রামে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়া। ক্ষমতায় চার বছর পূর্ণ করার কয়েক দিন আগেই মোদী জানিয়ে দিলেন বিদ্যুদয়নের প্রতিশ্রুতি পূর্ণ করেছে তাঁর সরকার। দেশের সব গ্রামে বিদ্যুৎ পৌঁছে গিয়েছে।

এখানেই রয়েছে সমস্যা। সব গ্রামে বিদ্যুৎ পৌঁছে যাওয়া মানেই এই নয় যে সব বাড়িতে বিদ্যুৎ পৌঁছে গিয়েছে। একটি সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে এই মুহূর্তে গোটা ভারতে প্রায় ৩২ লক্ষ বাড়ি এখনও বিদ্যুৎহীন।

 গ্রামীণ বিদ্যুদয়নের সংজ্ঞা অনুযায়ী কোনো গ্রামে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ইত্যাদি প্রতিষ্ঠান সহ দশ শতাংশ বাড়িতে যদি বিদ্যুৎ পৌঁছে যায়, তা হলে সেই গ্রামকে বিদ্যুদয়িত আখ্যা দেয় সরকার। অর্থাৎ সেই গ্রামে যদি ৯০ শতাংশ বাড়িতে বিদ্যুৎ নাও পৌঁছোয়, তা হলে সরকারের খাতায় লেখা থাকবে সেই গ্রাম বিদ্যুদয়িত।

সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, এই সরকারের আমলে যে যে নতুন গ্রামে বিদ্যুৎ পৌঁছে গিয়েছে তার মাত্র আট শতাংশ গ্রামেই সব বাড়িতে বিদ্যুৎ গিয়েছে। বাকি কোনো গ্রামেই সব বাড়িতে বিদ্যুৎ পৌঁছোয়নি। অর্থাৎ দেশের গ্রামাঞ্চলের বিরাট অংশ এখনও বিদ্যুতের অভাবে অর্থনীতিক বৃদ্ধি, শিক্ষা এবং স্বাস্থ্যব্যবস্থা থেকে বঞ্চিত।

গুরুগ্রামের পরিকাঠামো উপদেষ্টা সংস্থা ক্রিসিলের ডিরেক্টর বিবেক শর্মা বলেন, “এ রকম অস্পষ্ট বিবরণ শুধুমাত্র ভুল এবং ভ্রান্ত ধারণার সৃষ্টি করে। বাস্তবতা থেকে আমাদের দূরে সরিয়ে নিয়ে যায়। শুধুমাত্র বিদ্যুৎ সংযোগ করে দিলেই আর্থিক উন্নয়ন হয় না। নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ পরিষেবাটা পাওয়া আরও বেশি জরুরি।”

বিদ্যুৎ সংযোগ পৌঁছে দেওয়ার কাজ যে এখনও অনেক বাকি রয়েছে সেটি কেন্দ্রও বিলক্ষণ জানে। গত বছর অক্টোবরে দেশের ৩৬ লক্ষ ৮০ হাজার বাড়ি বিদ্যুৎহীন ছিল। এই সপ্তাহেই প্রকাশিত একটি রিপোর্টে দেখা গিয়েছে এর মধ্যে মাত্র ১৩ শতাংশ বাড়িতে বিদ্যুৎ পৌঁছেছে। অর্থাৎ এখনও অনেক কাজ বাকি রয়েছে।

সুতরাং মোদীর কথামতো ভারতের সব গ্রামে বিদ্যুৎ পৌঁছে গেলেও একশো শতাংশ গ্রামবাসী কবে বিদ্যুৎ পাবে সেটাই দেখার।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here