কেন্দ্রীয় সরকারের পোর্টাল মাইগভ-এর দুবছর পূর্তি উপলক্ষে ছিল সারাদিন ব্যাপী অনুষ্ঠান। চার পর্বের অনুষ্ঠানের শেষ পর্বে ছিল প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য। তাতে সুশাসন, অর্থনীতি ও স্বাস্থ্য পরিষেবা নিয়ে নানা প্রশ্নের উত্তর দিলেন তিনি। টাউনহলে বসে শুনলেন প্রায় ২০০০ মানুষ। আর সেখানেই দেশে সাম্প্রতিক গো-রক্ষাকারীদের নিয়ে মুখ খুললেন প্রধানমন্ত্রী। বলেন, রাতে যারা সমাজবিরোধী, তারাই দিনের বেলা গো-রক্ষক হয়ে যাচ্ছে। এদের ওপর আমার রাগ হয়। আমি রাজ্য সরকারগুলিকে এদের তালিকা বানানোর অনুরোধ করছি। দেশে রো-রক্ষাকারীদের তুলনায় গো-সেবকের বেশি প্রয়োজন।

এদিন সুশাসন নিয়ে বেশ কিছু কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।  কথায়, ‘শুধু ভোট দিয়ে জনগণের দায়িত্ব শেষ হয়ে যায় না, গণতন্ত্রে জনগণের অংশগ্রহণ অত্যন্ত জরুরি। সরকারের শুধু সিদ্ধান্ত নিলেই হবে না, পরিষেবা প্রান্তিক মানুষের কাছে পৌঁছচ্ছে কিনা, তা লক্ষ্য রাখা দরকার’।

সেল ফোন ব্যবহারকারীরা যাতে পিএমও-র সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ রাখতে পারেন, তার জন্য একটি অ্যাপও এদিন উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী।

স্বাস্থ্য পরিষেবা নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য, ‘বিশুদ্ধ জল যদি আমরা সরবরাহ করতে পারি, তাহলে স্বাস্থ্য সংক্রান্ত সমস্যা অনেকটাই দূর করা সম্ভব। যে ভাবেই হোক রোগ প্রতিরোধ করতে হবে’।

অর্থনীতির খুব দ্রুত বৃদ্ধি বা হঠাৎ করে গতি শ্লথ হয়ে যাওয়া ঠিক নয়, বরং জরুরি সামঞ্জস্যপূর্ণ বৃদ্ধি, বলেন প্রধানমন্ত্রী।

এদিনের অনুষ্ঠানে মাইগভ আয়োজিত প্রতিযোগিতায় জয়ীদের পুরস্কৃত করেন মোদি। মোদি ছাড়াও সারাদিনের অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন অথ৪মন্ত্রী অরুণ জেটলি, তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ।  

 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here