নয়াদিল্লি: নির্ধারিত সময়ের ছ’দিন আগেই দক্ষিণ আন্দামান সাগর পৌঁছে গেল দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বায়ু। রবিবার দুপুরের বুলেটিনে এমনই ঘোষণা করেছে দিল্লির মৌসম ভবন।

সাধারণত ২০ মে আন্দামান নিকোবর দ্বীপপুঞ্জে মৌসুমি বায়ু পৌঁছোয়। কিন্তু এ বার আন্দামান সাগর এবং দক্ষিণ-পূর্ব বঙ্গোপসাগরের পরিস্থিতি আগে থেকেই বর্ষার অনুকূল হয়ে উঠেছে। আবহাওয়া দফতর থেকে জানানো হয়েছে, রবিবার দক্ষিণ আন্দামান সাগর, নিকোবর দ্বীপপুঞ্জ, দক্ষিণ-পূর্ব বঙ্গোপসাগর এবং দক্ষিণ-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর মৌসুমি বায়ুর আওতায় চলে এসেছে। আরও আশার বাণী শুনিয়েছে হাওয়া অফিস। তাদের মতে, আগামী ৭২ ঘণ্টায় সমগ্র আন্দামান দ্বীপপুঞ্জ এবং দক্ষিণ বঙ্গোপসাগর অতিক্রম করে বর্ষা পৌঁছে যাবে পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগরের কিছু অংশে।

কেরলে নির্ধারিত দিনের আগেই বর্ষা?

কেরলে বর্ষা পৌঁছনোর নির্ধারিত দিন পয়লা জুন। কিন্তু আন্দামানে বর্ষা আগে এলেই কেরলে আগে পৌঁছবে তার কোনো নিশ্চয়তা নেই। এর জলজ্যান্ত উদাহরণ গত বছর। আন্দামানে নির্ধারিত দিনের দু’দিন আগে অর্থাৎ ১৮ মে বর্ষা প্রবেশ করলেও, কেরলে ঢুকেছিল ৫ জুন, নির্ধারিত দিনের ৪ দিন পর।

কেরলে এ বার কবে বর্ষা প্রবেশ করবে সে ব্যাপারে আবহাওয়া দফতর মুখ না খুললেও, কয়েক জন বিশিষ্ট আবহাওয়া বিজ্ঞানীর ধারণা মে মাসের শেষেই হয়তো ভারতীয় ভূখণ্ডে পৌঁছে যাবে মৌসুমি বায়ু। তবে সামনের সপ্তাহের মাঝামাঝি থেকে কেরলে বৃষ্টি বাড়বে বলে আশা প্রকাশ করেছে হাওয়া অফিস।

উত্তরপূর্বে প্রবল বৃষ্টি

বর্ষা আসুক কি না আসুক, উত্তরপূর্বের পরিস্থিতি এমনিতেই বর্ষার মতো। গত কয়েক দিন ধরেই প্রবল বৃষ্টি চলেছে অসম, মেঘালয়, মণিপুর, নাগাল্যান্ড, মিজোরাম এবং ত্রিপুরায়। এই পরিস্থিতির খুব একটা পরিবর্তন ঘটবে না। আগামী পাঁচ দিন ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির সতর্কতা জারি করা রয়েছে। এ রকম বৃষ্টি চললে, উত্তরপূর্বে নির্ধারিত দিনের আগেই বর্ষা পৌঁছে যেতে পারে।

পশ্চিমবঙ্গে তাপমাত্রা বাড়লেও, মাঝেমধ্যেই হানা দেবে ঝড়বৃষ্টি

এই মরশুমে দক্ষিণবঙ্গে আর তাপপ্রবাহের সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। তবে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা বাড়বে। পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলিতে তাপমাত্রা চল্লিশ ডিগ্রির কাছাকাছি পৌঁছোতে পারে, অন্য দিকে কলকাতার তাপমাত্রা ছুঁতে পারে আটত্রিশ ডিগ্রি। তবে তাপমাত্রা বাড়লেও, ঝড়বৃষ্টির সম্ভবনা রোজই রয়েছে বলে জানা গিয়েছে। বিভিন্ন বিদেশি ওয়েবসাইট থেকে জানা যাচ্ছে, সোমবার থেকে প্রতি দিনই বিকেল অথবা সন্ধ্যার দিকে ঝড়বৃষ্টিতে স্বস্তি মিলতে পারে কলকাতায়। তবে মে’র শেষ সপ্তাহ থেকেই দক্ষিণবঙ্গে প্রাকবর্ষার বৃষ্টি শুরু হয়ে যাবে বলে আশাবাদী আবহাওয়া বিশেষজ্ঞরা। কমবেশি বৃষ্টি চলবে উত্তরবঙ্গেও।

মধ্যভারতে তাপপ্রবাহ

ভারতীয় মূল ভূখণ্ডে বর্ষাকে টেনে আনার জন্য বিশাল ভূমিকা পালন করে উত্তর-পশ্চিম এবং মধ্য ভারতের প্রবল গরম। তবে এ বার গরম সে ভাবে তার রুদ্র রূপ দেখায়নি এই সব অঞ্চলে। কিন্তু এখন তাপপ্রবাহের একটা সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, ৪৮ ঘণ্টা পর থেকে বিহার, ঝাড়খণ্ড, ওড়িশা, ছত্তীসগঢ় এবং মহারাষ্ট্রে তাপপ্রবাহের সতর্কতা জারি করা হয়েছে।

সব মিলিয়ে আবহাওয়া বিশেষজ্ঞদের ধারণা এ বার হয়তো ভারতের মূল ভূখণ্ডেও নির্ধারিত সময়ের আগেই যাত্রা শুরু করবে দক্ষিণ পশ্চিম মৌসুমি বায়ু।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here