ভারতে হেপাটাইটিসে আক্রান্ত পাঁচ কোটিরও বেশি মানুষ

0
b-and-c
প্রতীকী ছবি

ওয়েবডেস্ক: এখনও পিছিয়ে রয়েছে ভারত। দেশের প্রায় চার কোটি মানুষ এখনও ক্রনিক হেপাটাইটিস বি ভাইরাসে আক্রান্ত। এক কোটি ২০ লক্ষ মানুষ আক্রান্ত হেপাটাইটিস সি ভাইরাসে। সেই জায়গায় বাংলাদেশ, ভুটান, নেপাল, থাইল্যান্ড হেপাটাইটিস বি ভাইরাসের ওপর নিয়ন্ত্রণ কায়েম করে নিয়েছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা সম্প্রতি জানিয়েছে, এই দেশগুলি এশিয়ার দক্ষিণ পূর্বাঞ্চলের মধ্যে সর্বপ্রথম এই সাফল্য পেল।

ন্যাশনাল লিভার ফাউনডেশনের প্রতিষ্ঠাতা সমীর শাহ বলেন, বি ভাইরাসের হাত থেকে বাঁচতে, এই বিষয়ে সাফল্য পেতে হলে প্রতি বছর ২.৭ কোটি নবজাতককে এই রোগের ভ্যাকসিন দিতে হবে। পাশাপাশি সি ভাইরাস থেকে মুক্তির উপায় হল জনসাধারণের মধ্যে থেকে এই রোগাক্রান্তদের চিহ্নিতকরণ ও তাদের বিনামূল্যে চিকিৎসা পরিষেবা দেওয়া। সি ভাইরাসের কোনো ভ্যাকসিন হয় না। এই বিষয়ে সরকারের সহযোগিতা খুবই জরুরি।

ওয়ার্ল্ড হেপাটাইটিস ডে উপলক্ষ্যে একটি ঘোষণাপত্রে বলা হয়েছে, এই সব দেশে পাঁচ বছরের কমবয়সি শিশুদের মধ্যে হেপাটাইটিস বি-র প্রকোপ এক শতাংশেরও কম হয়েছে। সেখানে ভারত সম্পর্কে বলা হয়েছে, এখানে জনসংখ্যার চার শতাংশ বি ভাইরাস ও ১.২ শতাংশ সি ভাইরাসে আক্রান্ত।

আরও পড়ুন – সুস্থ কোষের ক্ষতি না করেই ক্যানসার কোষ ধ্বংস রেডিওথেরাপিতে, গবেষণা

সরকার ও হু-এর তথ্য অনুযায়ী প্রতি বছর হেপাটাইটিসের কারণে লিভারের রোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যায় ১০ লক্ষ মানুষ।

উল্লেখ্য, এই ভাইরাসের কারণে লিভারের নানান দুরারোগ্য ব্যধি, লিভার ক্যানসার, পেটে জল জমা ইত্যাদি রোগ হয়। তাও কোনো রকম উপসর্গ ছাড়াই ২০ থেকে ৩০ বছর এই রোগ শরীরের ভেতরে বসবাস করে। এই রোগ ছড়ায় রক্তের মাধ্যমে। অসুরক্ষিত ইনজেকশন ও রক্ত দেওয়ার পদ্ধতির মাধ্যমে।  

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.