মুম্বই মার্চ: বিজেপি সরকারকে বিপাকে ফেলা জে ভি গাভিত আসলে কে?

0

মুম্বই: নাসিক থেকে মুম্বই, ১৮০ কিমি পথ অতিক্রমকারী কিষাণসভার মিছিল এবং তার পরিপ্রেক্ষিতে মহারাষ্ট্রের বিজেপি সরকারের নতিস্বীকার নিয়ে তোলপাড় গোটা দেশ। বিজেপি বাদে বাকি সমস্ত রাজনৈতিক দল কৃষকের ঋণ ও বিদ্যুৎ বিল মকুবের দাবিতে সংগঠিত ওই কর্মসূচিকে দু’ হাত তুলে সমর্থন জানিয়েছে। তবে প্রায় ৫০ হাজার কৃষকের এমন একটি ইতিবাচক কর্মসূচি গ্রহণ এবং তার বাস্তব রূপায়ণের নেপথ্য যে গুটিকয় মস্তিষ্কের ভূমিকা অনস্বীকার্য, তাঁদেরই একজন এই জীবা পাণ্ডু গাভিত।

ঋণ মকুব বা জঙ্গলের অধিকার আইনের স্বপক্ষে গৃহীত ওই কর্মসূচির প্রস্তাব তিনিই প্রথম উত্থাপন করেছিলেন বলে জানা গিয়েছে খোদ সারা ভারত কিষাণসভা বা এআইকেএস-এর তরফে। রাজনীতিতে গাভিতের আবির্ভাব কৃষক আন্দোলনের মধ্যে দিয়েই। মহারাষ্ট্রের সরগুণা বিধানসভা এলাকাটি ছিল আদিবাসী অধ্যুষিত, ওই আসনেই ১৯৭৮-এ প্রথম বার বিধায়ক হিসাবে নির্বাচিত হন গাভিত। কারণ ওই অঞ্চলের আদিবাসী মানুষের এক মাত্র জীবিকা ছিল চাষবাস। যার জেরে কৃষক আন্দোলনের সাফল্য এসে পড়ে ভোটের ফলাফলেও। সেই থেকে টানা সাত বার তিনি ওই কেন্দ্র (আসন পুনর্বিন্যাসের জন্য নাম পালটে কল্বান) থেকে নির্বাচিত হয়ে এসেছেন।বর্তমানে মহারাষ্ট্র বিধানসভার একমাত্র সিপিএম তথা বামপন্থী বিধায়ক এই গাভিত।

গত সোমবারের মহারাষ্ট্র বিধানসভা ঘেরাও কর্মসূচি নিয়ে আতান্তরে পড়েছে বিজেপি। মিছিলে অংশগ্রহণকারীদের সামাজিক অবস্থান নিয়ে বিজেপির তরফে পরস্পর বিরোধী মন্তব্য করা হচ্ছে। মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়নবীশ বলেছেন, ওই মিছিলে মাওবাদীরা অংশ নিয়েছিল। এর সঙ্গে কৃষকের কোনো সম্পর্ক নেই। আবার দলের সাংসদ পুনম মহাজন বলেছেন, মিছিলে যারা এসেছিল তারা আদিবাসী সম্প্রদায়ের মানুষ। জঙ্গলের অধিকার হাতে তুলে দেওয়ার লোভ দেখিয়ে তাদের মিছিলে নিয়ে আসা হয়েছিল।

তবে অংশগ্রহণকারীদের সামাজিক পরিচয় নিয়ে যত বিতর্কই চলুন, জয়ের হাসি কিন্তু গাভিতের ঠোঁটেই। সরকার কৃষি ঋণ ও বিদ্যুৎ বিল মকুবের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কিন্তু জঙ্গলের অধিকার আইন বাস্তবায়নের লক্ষ্যে আজ থেকে ১২ বছর আগে তিনি যে আন্দোলন শুরু করেছিলেন, সোমবার পেয়েছেন তার লিখিত প্রতিশ্রুতি। নিজে একজন আদিবাসী সম্প্রদায়ের প্রতিনিধি হিসাবে, এটাই তাঁর কাছে সব চেয়ে বড়ো প্রাপ্তি।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন