মইনাজ বেগম নিজের সদ্যোজাত পুত্রের নাম রাখলেন ‘নরেন্দ্র দামোদরদাস মোদী’

0
Mainaz-Begum
ছবি: এএনআই থেকে

ওয়েবডেস্ক: স্বামী মুসতাক আহমেদ কর্মসূত্রে থাকেন দুবাইয়ে। সদ্যোজাত পুত্রের নাম রাখতে চান মা, মইনাজ বেগম। ২৩ মে সারা দেশে মোদী-ঝড়। ওই দিনই জন্মানো ছেলের নামকরণ নিয়ে মায়ের মাথায় আচমকা চলে এল একটা ধারণা। ছেলের নাম দেশের প্রধানমন্ত্রীর নামেই রাখলে তো মন্দ হয় না তো!

কিন্তু বাধ সাঁধলের পরিবারের সদস্য মায় পাড়াপ্রতিবেশীরাও। এটা কী ভাবে সম্ভব। মুসতাক আহমেদের ছেলে কী করে মোদী হয়ে যায়!

অগত্য, এফিডেভিট করে আইনি যাবতীয় প্যাঁচ-পয়জার কষেই ছেলের নাম মোদীর নামেই রাখার জেদে একবগ্গা হয়ে রইলেন মইজান।

উত্তরপ্রদেশের গোণ্ডা জেলার পারসাপুর মাহরাউরের বাসিন্দা মইজানের এহেন কাণ্ডই এখন চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে গোটা দেশে। তিনি পরামর্শ মানেননি নিজের স্বামীরও। মুসতাক এখন দুবাইয়ে। তাঁর কাছে খবর যায়, ছেলের নাম রাখা নিয়ে মইজানের কাণ্ডকারখানা। দুবাই থেকেই স্ত্রীকে অনেক বোঝানোর চেষ্টা করেন মুসতাক। কিন্তু মইজানকে টলানো যায়নি। শেষমেশ ‘বাধ্য’ স্বামীর মতোই মুসতাকও স্ত্রীর ইচ্ছায় সায় দিয়েছেন।

স্থানীয় পঞ্চায়েতের অ্যাসিস্ট্যান্ট ডেভেলপমেন্ট অফিসার ঘণশ্যাম পাণ্ডে জানিয়েছেন, ওই পরিবার ডিস্ট্রিক্ট ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে এফিডেভিট দাখিল করেছে। সেই শংসাপত্র জমা করা হয়েছে পঞ্চায়েত কার্যালয়েও।

ঘণশ্যাম জানিয়েছেন, ওই এফিডেভিট গ্রামের পঞ্চায়েত সম্পাদকের কাছে পাঠানো হয়েছে। তিনিই জন্মের শংসাপত্র দিয়ে থাকেন। তবে পুরো বিষয়টিই আইনি মতে সম্পন্ন হবে।

মইনাজ জানিয়েছেন, প্রধানমন্ত্রী মোদীর একাধিক গ্রামোন্নয়ন প্রকল্পে তিনি খুশি। বিশেষ করে গ্রামীণ এলাকার মহিলাদের জন্য রান্নার গ্যাসের সংযোগ পেয়ে তিনি আপ্লুত। যে কারণে মোদীকে ধন্যবাদ জানাতে তিনি এই পথ বেছে নিয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here