রাষ্ট্রপতির সম্মতি মিললেও নয়া তিন কৃষি আইন কার্যকর করবে না মহারাষ্ট্র, হুঁশিয়ারি মন্ত্রীর

0
Balasaheb Thorat

নয়াদিল্লি: রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ সংসদে পাশ হওয়া কৃষি বিলগুলিতে স্বাক্ষর করার পরই মহারাষ্ট্রে কার্যকর করা হবে না বলে জানিয়ে দিলেন রাজ্যের রাজস্বমন্ত্রী।

অভূতপূর্ব নাটকীয়তার মধ্যে দিয়ে সংসদে পাশ হওয়া কৃষি বিলগুলিতে রবিবার স্বাক্ষর করেন রাষ্ট্রপতি। এর পরই মহারাষ্ট্রের জোট সরকারের রাজস্বমন্ত্রী বালাসাহেব থোরাট বলেন, “মহারাষ্ট্র রাজ্য সরকার বিলগুলি কার্যকর করবে না”। তিনি বিলগুলিকে ‘কৃষক-বিরোধী’ বলে অভিহিত করেন। একই সঙ্গে কংগ্রেস নেতা জানিয়ে দেন, এ ব্যাপারে শিবসেনাও তাঁদের পাশে রয়েছে।

গেজেট বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, রাষ্ট্রপতি তিনটি কৃষি বিলে সম্মতি জানিয়েছেন। এগুলির মধ্যে রয়েছে অত্যাবশ্যকীয় পণ্য সংশোধনী’, ‘কৃষি পণ্য লেনদেন ও বাণিজ্য উন্নয়ন’ এবং ‘কৃষিপণ্যের দাম নিশ্চিত করতে কৃষকদের সুরক্ষা ও ক্ষমতায়ন চুক্তি’ সংক্রান্ত তিনটি বিল।

বিরোধী রাজনৈতিক দল এবং কৃষক সংগঠনের চরম বিরোধিতার মাঝেই সংসদের বাদল অধিবেশনে বিলগুলি নাটকীয় ভাবে পাশ হয়ে যায়। সেই বিলগুলিতে রাষ্ট্রপতি স্বাক্ষর মিলতেই তা আইনে পরিণত হওয়ার কথা।

বিরোধীদের প্রতিবাদের পাশাপাশি এই বিলগুলি নিয়ে এনডিএ-র অন্দরেই সংঘাত বেঁধেছে। বিলের বিরোধিতা করে বিজেপির সঙ্গ ত্যাগ করেছে পুরনো সঙ্গী আকালি দল। (বিস্তারিত পড়ুন এখানে: বিতর্কিত কৃষি বিলের বিরোধিতায় বিজেপি-সঙ্গ ত্যাগ করল অকালি দল)

এ প্রসঙ্গে শিবসেনা নেতা সঞ্জয় রাউত বলেন, “শিবসেনা এবং অকালি দল- উভয়েই দুর্দিনে বিজেপির পাশে দাঁড়িয়েছিল। কিন্তু শিবসেনা গত বছর এনডিএ ছাড়তে বাধ্য হয়েছিল, এখন কৃষি বিলকে কেন্দ্র করে অকালি দলও ছেড়ে গেল। এই ধরনের ঘটনার জন্য আমাদের দু:খ পাওয়াটা অমূলক নয়”।

এ দিন রাষ্ট্রপতির সম্মতি মিলতেই তড়িঘড়ি নয়া তিন আইনের বিজ্ঞপ্তিও জারি করে দিয়েছে কেন্দ্র। স্বাভাবিক ভাবেই মহারাষ্ট্র সরকার যদি তা কার্যকর করতে না চায়, তা হলে ফের নতুন করে সংঘাত বাঁধতে চলেছে।

এ দিকে গত শনিবার অকালি দলের সিদ্ধান্ত ঘোষণার পর তাদের সমর্থন জানিয়েছে পশ্চিমবঙ্গের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস। তৃণমূলের রাজ্যসভার সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন বলেন, “আমরা সুখবীর সিং বাদল এবং অকালি দলের কৃষকদের সঙ্গে থাকার অবস্থানকে সমর্থন করছি। কৃষকদের জন্য লড়াই তৃণমূল কংগ্রেসের অবিচ্ছেদ্য একটি অংশ”। ফলে মহারাষ্ট্রের মন্ত্রীর হুঁশিয়ারির পর নয়া আইনগুলি নিয়ে পশ্চিমবঙ্গের শাসকদল কী পদক্ষেপ নেয়, সেটাও দেখার!

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন