নিজস্ব সংবাদদাতা, ইম্ফল: মণিপুরে প্রথম বিজেপি সরকার শপথ নিল। কিন্তু সেই অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকতে পারলেন না অমিত শাহরা।  

বিমানে যান্ত্রিক গোলযোগ দেখা দেওয়ায় মাঝপথ থেকেই দিল্লিতে ফিরে যেতে হল বিজেপি-র কেন্দ্রীয় সভাপতি অমিত শাহ, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বেঙ্কাইয়া নাইডু-সহ বেশ কয়েক জন নেতা-মন্ত্রীকে। তাঁরা সকালে লখনউ থেকে বিমানে চড়েন। তাঁদের আসতে না পারার খবরে উৎসাহে ভাটা পড়ে ইমফলে দলের নেতা-কর্মীদের। এ দিনের শপথ অনুষ্ঠান বাতিল করে পরে অন্য কোনো দিন তা করার প্রস্তাবও করেন অনেকে। কিন্তু অমিত শাহের নির্দেশে নির্ধারিত সূচি অনুযায়ীই শপথপর্ব সম্পন্ন হয়।

বুধবার দুপুর ১টায় মণিপুরের রাজভবনে মুখ্যমন্ত্রী নংথনবাম বীরেন সিং ছাড়াও শপথ নেন ৮জন মন্ত্রী। উপ-মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন ওই রাজ্যের ‘ন্যাশনাল পিপল্‌স পার্টি’ (এনপিপি)-র বিধায়ক ইয়ুমনাম জয়কুমার সিং। ওই দলের বাকি তিন বিধায়কও মন্ত্রী হয়েছেন। তা ছাড়া কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিকে সমর্থনকারী থউনাওজাম শ্যামকুমার, নাগা পিপলস ফ্রন্ট (এনপিএফ)-এর লসি দিখো, লোক জনশক্তি পার্টির করম শ্যাম সিংহ এবং বিজেপি-র থংগম বিশ্বজিৎ সিংহও মন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন।

 


গত সপ্তাহেই মণিপুরের বিধানসভা নির্বাচনে সব চেয়ে বেশি আসন পায় কংগ্রেস (২৮টি)। ২১টি আসনে জিতে এবং বাকি রাজনৈতিক দলের সমর্থন জোগাড় করে জোট সরকার গড়ার সিদ্ধান্ত নেয় বিজেপি। রাজ্যের নতুন মুখ্যমন্ত্রী বিজেপি-তে যোগ দেন গত বছর অক্টোবর মাসে। এর আগে ছিলেন কংগ্রেসের সদস্য। রাজনীতিতে আসার আগে জাতীয় স্তরে ফুটবল খেলেছেন দীর্ঘদিন।

বিধানসভায় যত তাড়াতাড়ি সম্ভব, বীরেন সিংকে তাঁর সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণ করার নির্দেশ দিয়েছেন মণিপুরের রাজ্যপাল নাজমা হেপতুল্লা। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, একটানা শেষ ১৫ বছর মণিপুরের মুখ্যমন্ত্রিত্ব করেছেন কংগ্রেস সদস্য ওক্রাম সিং। 

 

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন