নারদ মামলা: মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আবেদনের শুনানি পিছলো সুপ্রিম কোর্টে

    আরও পড়ুন

    মঙ্গলবার শুনানি শুরু হতেই দু’পক্ষের আইনজীবীর মধ্যে তীব্র বাদানুবাদ। শুনানি পিছিয়ে দিল সুপ্রিম কোর্টের বেঞ্চ।

    খবর অনলাইন ডেস্ক: নারদ মামলায় কলকাতা হাইকোর্টের ৯ জুনের নির্দেশের বিরুদ্ধে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, রাজ্যের আইনমন্ত্রী মলয় ঘটকের দায়ের করা আবেদনের শুনানি হল সুপ্রিম কোর্টে। মঙ্গলবার সর্বোচ্চ আদালতের বিচারপতি বিনীত সরণ এবং বিচারপতি দীনেশ মাহেশ্বরীর বেঞ্চ এই মামলার শুনানি আগামী শুক্রবার পর্যন্ত পিছিয়ে দেয়।

    Loading videos...

    এ দিন শুনানির শুরুতেই বেঞ্চ জানায়, মামলাটি কী নিয়ে, নতুন বেঞ্চ সেই বিষয়ে অবহিত নয়। তাই মামলার শুনানি বুধবার হওয়ার কথা জানিয়েছিলেন বিচারপতি সরণ। কিন্তু তা নিয়ে উভয়পক্ষের আইনজীবীর মধ্যে চরম বাদানুবাদ শুরু হয়ে যায়।

    - Advertisement -

    মুখ্যমন্ত্রীর আইনজীবী রাকেশ দ্বিবেদী বলেন, ‘‘নারদ মামলার শুনানি বুধবার কলকাতা হাইকোর্টে রয়েছে। তাই শুক্রবার পর্যন্ত যাতে হাই কোর্টে শুনানি না হয় তার নির্দেশ দেওয়া হোক।’’ অন্য দিকে সিবিআই-এর আইনজীবী ও সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা বলেন, ‘‘আমি এর সঙ্গে একমত নই। হাইকোর্টে মামলাটির শুনানি মধ্য পর্যায়ে রয়েছে। দু’পক্ষের সওয়াল শেষ হয়েছে। এই অবস্থায় হাই কোর্টে মামলার শুনানি বন্ধ রাখা উচিত নয়।’’

    পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে পৌঁছায় যে, বিচারপতি সরণ বলেন, “আপনারা এ রকম করলে আমি মামলা ১৫ দিনের জন্য পিছিয়ে দেব”।

    কিছুক্ষণের মধ্যে দু’পক্ষ শান্ত হলে বিচারপতি জানান, আগামী ২৫ জুন (শুক্রবার) এই মামলার পরবর্তী শুনানি হবে। একই সঙ্গে তিনি কলকাতা হাইকোর্টকে অনুরোধ করেন, শুক্রবার পর্যন্ত তারাও যেন নারদ মামলার শুনানি না করে।

    প্রসঙ্গত, নারদ মামলায় গত মাসে চার নেতা-মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম, সুব্রত মুখোপাধ্যায়, মদন মিত্র ও শোভন চট্টোপাধ্যায়কে গ্রেফতার করে সিবিআই। ওই ঘটনার প্রতিবাদে সিবিআই দফতরে বিক্ষোভ দেখান তৃণমূল কর্মী-সমর্থকরা, ধর্নায় বসেন মুখ্যমন্ত্রী।

    নারদ মামলা অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য সিবিআইয়ের আবেদনের শুনানি করে কলকাতা হাইকোর্টের পাঁচ বিচারপতির বেঞ্চ। গ্রেফতারের দিন নিজেদের ভূমিকা নিয়ে গত ৯ জুন হাইকোর্টে হলফনামা জমা করার আবেদন জানান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আইনজীবী। কিন্তু হাইকোর্ট সেই হলফনামা জমা নেয়নি। বলা হয়, এক পক্ষের সওয়াল শেষ হওয়ার পর নতুন করে ওই হলফনামা জমা নিলে তার উপর আবার আলোচনা হবে। হাইকোর্টের ওই নির্দেশের বিরুদ্ধেই সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী

    আরও পড়তে পারেন: পৃথক রাজ্যের দাবি, বিজেপির ২ সাংসদের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করল তৃণমূল

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here

    This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

    - Advertisement -

    আপডেট খবর