এ মাসেই মন্ত্রীসভার সম্প্রসারণ করতে পারেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী! বাংলা থেকে কারা ঠাঁই পাচ্ছেন?

    আরও পড়ুন

    খবর অনলাইন ডেস্ক: কেন্দ্রীয় মন্ত্রীসভার সম্প্রসারণ নিয়ে জল্পনা আরও জোরদার। শোনা যাচ্ছে, চলতি জুন মাসের মধ্যেই মন্ত্রীসভার সম্প্রসারণ করতে পারেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi)।

    কেন্দ্রে দ্বিতীয় মোদী সরকার আসীন হওয়ার পর এনডিএ থেকে বেরিয়ে গিয়েছে শিবসেনা, শিরোমণি অকালি দল। প্রয়াত হয়েছেন লোকজনশক্তি পার্টি নেতা, কেন্দ্রীয় খাদ্যমন্ত্রী রামবিলাস পাসোয়ান। ফলে নিজের মন্ত্রকের পাশাপাশি মন্ত্রীসভার বেশ কিছু পদের বাড়তি দায়িত্ব সামলাতে হচ্ছে একাধিক মন্ত্রীকে।

    Loading videos...

    মূল লক্ষ্য দু’টি

    সূত্রের খবর, মূলত যে রাজ্যে ২০২২ সালে বিধানসভা ভোটে রয়েছে, সেখানকার নেতাদের মন্ত্রীসভায় বাড়তি গুরুত্ব দেওয়া হতে পারে। অন্যদিকে, এনডিএ শরিক অন্যান্য আঞ্চলিক দলগুলিকেও সামনের দিকে আনার কৌশল নেওয়া হতে পারে।

    - Advertisement -

    মন্ত্রীসভার সম্প্রসারণ নিয়ে ইতিমধ্যেই বৈঠকের কথা জানা গিয়েছে। পাশাপাশি মন্ত্রীসভার বর্তমান সদস্যের কাজের খতিয়ানের উপরও পর্যালোচনা করা হয়। সেখানেই নতুন মুখ বাছাইয়ের বিষয়টি আলোচনায় উঠে আসে। সূত্রের খবর, বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ সরকারের লক্ষ্য মূলত দু’টি। প্রথমটি, ২০২২ সালে উত্তরপ্রদেশ-সহ কয়েকটি রাজ্যের বিধানসভা ভোট, দ্বিতীয়টি এনডিএ জোটের বাঁধন অটুট রাখার বিষয়টি।

    বাংলা থেকে কারা?

    [দিলীপ ঘোষ, নিশীথ প্রামাণিক, আলোচনায় এখন দু’জনের নাম]

    সূত্রটি বলছে, মন্ত্রীসভায় ঠাঁই পাওয়ার দৌড়ে এগিয়ে রয়েছেন মেদিনীপুরের সাংসদ এবং দলের রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh)। বিধানসভা ভোটে তাঁকেই রাজ্য সভাপতি রেখে ভোটে নেমেছিল গেরুয়া শিবির। তবে মূল নিয়ন্ত্রণ ছিল কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের হাতেই। ভোটের পরে তৃণমূল থেকে এসে বিজেপির বিধায়ক হওয়া শুভেন্দু অধিকারীকে বিধানসভার বিরোধী দলনেতার আসনে বসিয়েছে বিজেপি। সেই জায়গা থেকে দলের রাজ্য সংগঠনেও রদবদল করা হতে পারে। সে ক্ষেত্রে দিলীপের নাম কেন্দ্রীয় মন্ত্রীসভায় লেখানোর পর রাজ্য সভাপতিপদেও বদল ঘটতে পারে বলে অনুমান রাজনৈতিক মহলের।

    চর্চায় উঠে এসেছে কোচবিহারের বিজেপি সাংসদ নিশীথ প্রামাণিকের (Nisith Pramanik) নাম-ও। এ বারের বিধানসভা ভোটে দক্ষিণের তুলনায় উত্তরবঙ্গে ভালো ফল করেছে বিজেপি। উত্তরবঙ্গের ৬ জেলার ৪২ আসনের মধ্যে ২৫টিতে জয়ী হয়েছে বিজেপি। কোচবিহারে ৯টি আসনের মধ্যে ৭টিই ঝুলিতে পুরেছে বিজেপি। সংগঠনও বেশ মজবুত হচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতে নিশীথকে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীসভায় পাকা জায়গা দিয়ে প্রভাব বাড়ানোর কৌশল নিতে পারে বিজেপি।

    আরও পড়তে পারেন: ‘পৃথক রাজ্যের দাবি’ নিয়ে কড়া বার্তা দিলীপ ঘোষের, বিঁধলেন অন্য দল থেকে বিজেপিতে আসা নেতাদের

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here

    This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

    - Advertisement -

    আপডেট খবর