গত বছর ভারতে আত্মহত্যা করেছেন ১ লক্ষ ৩৯ হাজার: এনসিআরবি

0
suicide ncrb
খুজরিতে উদ্ধার যুবকের ঝুলন্ত দেহ। প্রতীকী ছবি

খবরঅনলাইন ডেস্ক: আমাদের দেশে মানসিক স্বাস্থ্যের (Mental Health) বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে দেখাই হয় না। আত্মহত্যার কোনো ঘটনাকেও বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হয় না। একজন মানুষ কী কী কারণে আত্মহত্যা করতে পারেন, সেই দিকে খুব একটা নজরও দেওয়া হয় না। অথচ দেখা যাচ্ছে, এক বছরে দেশে দেড় লক্ষের কাছাকাছি মানুষ আত্মঘাতী হয়েছেন।

ন্যাশনাল ক্রাইম রেকর্ডস ব্যুরো (NCRB) বলছে, শুধুমাত্র ২০১৯-এ আত্মহত্যা করেছেন ১ লক্ষ ৩৯ হাজার ১২৩ জন। ২০১৮-এ আত্মহত্যা করেছিলেন ১ লক্ষ ৩৪ হাজার ৫১৬ জন। তার আগের বছরে এই সংখ্যাটা ছিল ১ লক্ষ ২৯ হাজার ৮৮৭ জন। অর্থাৎ, প্রতি বছরই আত্মহত্যার ঘটনা সাড়ে চার থেকে পাঁচ হাজার করে বাড়ছে।

২০১৮-র থেকে ২০১৯-এ প্রতি এক লক্ষে আত্মহত্যার হার বেড়েছে ০.২ শতাংশ। দেখা যাচ্ছে গোটা দেশের তুলনায়, শহরগুলিতে আত্মহত্যার হার বেশি। ভারতে আত্মঘাতী হওয়ার গড় হার ১০.৪ শতাংশ। কিন্তু শহরে আত্মহত্যার গড় হার ১৩.৯ শতাংশ।

গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যার ঘটনা সব থেকে বেশি ঘটেছে। ৫৩.৬ শতাংশ মানুষ গলায় দড়ি দিয়ে আত্মঘাতী হয়েছে গত বছর। বিষ খেয়ে আত্মহত্যা করেন ২৫.৮ শতাংশ মানুষ। জলে ডুবে নিজেকে মৃত্যুর পথে ঠেলে দেন ৫.২ শতাংশ মানুষ।

আত্মহত্যার কারণ হিসেবে সবার ওপরে রয়েছে পারিবারিক অশান্তি। পরিসংখ্যান বলছে, মোট আত্মহত্যার সিংহভাগই ( ৩২.৪ শতাংশ) পারিবারিক বিবাদের কারণে নিজের জীবনকে শেষ করেছেন। শুধুমাত্র বৈবাহিক জীবনের অশান্তি থেকে রেহাই পেতে আত্মঘাতী হন ৫.৫ শতাংশ মানুষ। এ ছাড়া, রোগের যন্ত্রণা থেকে চিরতরে মুক্তি চেয়ে আত্মঘাতী হন ১৭.১ শতাংশ।

এনসিআরবি আরও জানিয়েছে যে প্রতি ১০০ জনের মধ্যে ৭০.২ জন পুরুষ ও ২৯.৮ জন মহিলা আত্মহত্যা করেন। এর মধ্যে আবার বিবাহিত পুরুষের আত্মহত্যার হার বেশি। প্রায় ৬৮.৪ শতাংশ বিবাহিত পুরুষ আত্মহত্যা করেছেন। বিবাহিত মহিলার ক্ষেত্রে এই পরিসংখ্যান ৬২.৫ শতাংশ।

গোটা দেশের মধ্যে আত্মহত্যার সংখ্যা সব চেয়ে বেশি মহারাষ্ট্রে (১৮,৯১৬)। তার পরেই রয়েছে তামিলনাড়ু (১৩,৪৯৩)। তৃতীয় স্থানে রয়েছে পশ্চিমবঙ্গ ( ১২,৬৬৫)। এর পর রয়েছে মধ্যপ্রদেশ (১২,৪৫৭)। কর্নাটকের স্থান পঞ্চম (১১,২৮৮)।

খবরঅনলাইনে আরও পড়তে পারেন

বাড়িতে বসে, বই দেখে দেওয়া যাবে পরীক্ষা, জানাল কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন