ওয়েবডেস্ক: দেশে শিশুদের প্রতি অপরাধের পরিমাণ গত কয়েক বছরে বেড়েছে ৩০০%। এমনই দাবি করেছে ন্যাশনাল কমিশন ফর প্রোটেকশন অব চাইল্ড রাইটস (এনসিপিসিআর)-এর একটি পরিসংখ্যান। শনিবার এনসিপিসিআর-এর চেয়ারপার্সন স্তুতি কক্কর বলেন, শিশুপাচার বন্ধ করার জন্য সব রকম ভাবে ব্যবস্থা করা দরকার।

‘অ্যান্টি-হিউম্যান ট্রাফিকিং’ শীর্ষক একটি আলোচনা সভায় একটি লিখিত বিবৃতিতে স্তুতি কক্কর বলেন, ন্যাশনাল ক্রাইম রেকর্ড বুরোর তথ্য বলছে ২০০৯ সাল থেকে এই অপরাধের পরিমাণ বেড়েছে। ২০০৯ সালে এই ধরনের ২৪ হাজার ২০৩টি ঘটনা ঘটেছিল। ২০১৫ সালে এই সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৯২ হাজার ১৭২। সুতরাং দেখা যাচ্ছে ছয় বছরে ৩০০% বেড়েছে শিশু সংক্রান্ত অপরাধ। এই আলোচনা সভার আয়োজন করেছিল ‘কলকাতা মেরি ওয়ার্ড সোশ্যাল সেন্টার’ নামের একটা সংস্থা।

দেখা গেছে ২০০৯ থেকে ২০১৫ সালের মধ্যে নাবালিকা বিয়ে, শিশু অপহরণ, পাচার, পতিতাবৃত্তির জন্য শিশুদের নিষিদ্ধ পল্লিতে বিক্রি এই জাতীয় অপরাধের পরিমাণ খুবই বেড়েছে।

কক্কর বলেন, সম্প্রতি শিশু পাচারের সংখ্যা উল্লেখযোগ্য ভাবে বেড়েছে। ২০১৪ সালের তুলনায় ২০১৫ সালে শিশুপাচারের সংখ্যা ২৭% বৃদ্ধি পেয়েছে। ২০১৫ সালে ৯ হাজার ১০৪ জন শিশুকে পাচার করা হয়েছে। এই শিশুদের দেশের ভেতরে ও সীমান্ত পেরিয়ে বিদেশেও পাচার করা হয়েছে। মানব পাচারের ৬০%-ই হল শিশু পাচার।

তিনি বলেন, অর্থিক অসচ্ছলতা, লিঙ্গ বৈষম্য, দারিদ্র, বেকারত্ব এইগুলোই হল মানব পাচারের মূল কারণ। তাই এগুলোর ওপর জোড় দিতে হবে। কারণ এগুলোর সুযোগ নেয় পাচারকারিরা। সেই জন্য শিশুদের রক্ষা করতে এই ফাঁকগুলো পূরণ করার পরিকল্পনা করা দরকার।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here