ব্যক্তিগত বিনিয়োগে উৎসাহ দিতে বাজেটে একাধিক দাওয়াই

0
Nirmala Sitharaman

ওয়েবডেস্ক: কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন তাঁর দ্বিতীয় বাজেট পেশ করবেন ১ ফেব্রুয়ারি। এমন একটি সময়ে তিনি বাজেট পেশ করতে চলেছেন, যখন ভারতের অর্থনীতি গভীর মন্দার মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। অর্থনীতির মূল চালিকাশক্তি – উপভোক্তার চাহিদা, রফতানি এবং বিনিয়োগ দুর্বলতার স্বীকার হয়েছে। সব মিলিয়ে এ বারের বাজেট ব্যক্তিগত বিনিয়োগে অর্থমন্ত্রীর উৎসাহ দেওয়ার পদক্ষেপ হিসাবে কী কী বিষয়ে বেশি গুরুত্ব দেন, সেটাই দেখার।

এর আগে ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরে দেশীয় সংস্থাগুলির জন্য বিশাল অঙ্কের কর্পোরেট ট্যাক্স হ্রাসের সরকারি ঘোষণাকে অন্যতম বৃহত্তম সংস্কার হিসাবে চিহ্নিত করা হয়েছে। এর ফলে কর্পোরেট ট্যাক্স হিসাবে সরকারের আদায় ঠিক কী পরিমাণ হ্রাস পেয়েছে, তার পূর্ণাঙ্গ রিপোর্ট এখন প্রকাশ হয়নি। যদিও প্রাথমিক ভাবে জানা গিয়েছে, এই সিদ্ধান্তের ফলে কেন্দ্রের ১.৪৫ লক্ষ কোটি টাকার রাজস্ব ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে।

আরও পড়ুন ২০ বছরের মধ্যে এই প্রথমবার তলানিতে কর সংগ্রহ: রিপোর্ট

কিন্তু এর পরেও ২০২০-২১ অর্থবর্ষের বাজেট পেশের আগে বিশেষজ্ঞ এবং শিল্পপতিরা করের হারকে একীভূত করার লক্ষ্যে একটি রোডম্যাপ এবং লভ্যাংশ বিতরণ কর বিলুপ্ত করার মতো আরও বেশ কিছু সংস্কারের প্র্ত্যাশা করেছেন। স্বাভাবিক ভাবেই এ বারের বাজেটে অর্থমন্ত্রীর ঘোষণাগুলির মধ্যে বিশেষ ভূমিকা নিতে চলেছে কর সংক্রান্ত বিষয়টি। যা ব্যক্তিগত বিনিয়োগের সঙ্গে অঙ্গাঙ্গী জড়িত একটি বিষয়।

মন্দাক্রান্ত অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে ব্যবসায়িক আবেগের পুনরুজ্জীবনও অর্থমন্ত্রীর কাছে বড়োসড়ো একটি চ্যালেঞ্জ। ব্যাঙ্কগুলির ঋণনীতি আরও কঠোর হয়েছে। অনাদায়ী ঋণের পরিমাণ বেড়ে চলায় রাশ টানছে ব্যাঙ্কগুলি। অন্য দিকে এ মুহূর্তে বড়ো প্রকল্পে বিনিয়োগের মতো অবস্থা খুব বেশি সংস্থার নেই।

আরও পড়ুন আয়করে কতটা ছাড় মিলতে পারে এ বারের বাজেটে?

এর সঙ্গেই রয়েছে আয়কর আধিকারিকদের বিরুদ্ধে ব্যাঙ্ক কর্তাদের নির্দিষ্ট অভিযোগ। একই অভিযোগে সরব শিল্পপতিরাও। আয়কর দফতর-সহ সংশ্লিষ্ট অন্যান্য কেন্দ্রীয় বিভাগের বিরুদ্ধে অযথা হয়রানির অভিযোগ তুলেছেন তাঁরা। সমস্য়া সমাধানে সংশ্লিষ্ট উভয়পক্ষকে মুখোমুখি বসিয়ে ভীতি নিরসনের চেষ্টা করেছে কেন্দ্র। বাজেটও এ ধরনের একাধিক পদক্ষেপ নেওয়া হতে পারে বলেই অনুমান।

------------------------------------------------
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.