নয়াদিল্লি: রাজ্য যদি চায় তা হলে বিজ্ঞপ্তি জারি করে জাতীয় সড়কের তকমা তুলে দিতে পারে এবং মদের দোকান চালু করার জন্য অনুমতি দিতে পারে। মঙ্গলবার এমনই মত পোষণ করল শীর্ষ আদালত। জাতীয় সড়কের ধারে মদের দোকান বন্ধ হওয়ার ফলে যে সব রাজ্যে রাজস্ব ক্ষতির আশঙ্কা করা হচ্ছিল, তাদের কাছে কিছুটা স্বস্তি সুপ্রিম কোর্টের এই নতুন বার্তা।

মদের দোকান খোলা রাখতে পঞ্জাব সরকার একটা পন্থা নিয়েছে। চণ্ডীগড় শহরের কিছু রাস্তা এত দিন পর্যন্ত জাতীয় সড়ক ছিল। বিজ্ঞপ্তি জারি করে পঞ্জাব সরকার সেই রাস্তা থেকে জাতীয় সড়কের তকমা তুলে নিয়েছে। এর বিরুদ্ধে শীর্ষ আদালতে একটি মামলা করা হয়।

সুপ্রিম কোর্ট এ দিন জানায়, মদ খেয়ে চালকরা যাতে জাতীয় সড়কে তীব্র গতিতে গাড়ি না চালান সেই কারণে এই নির্দেশিকা জারি করা হয়েছিল। শহরের মধ্যে দিয়ে যাওয়া রাস্তার ধারে যদি মদের দোকান থাকে তা হলে কোনো সমস্যা নেই বলে জানায় শীর্ষ আদালত।

পঞ্জাবের পাশাপাশি শীর্ষ আদালতের এই রায়ের ফলে হাঁফ ছেড়ে বেঁচেছে কর্নাটক সরকারও। বেঙ্গালুরু শহরের মধ্যে দিয়ে রাস্তার ৭৮ কিলোমিটার জাতীয় সড়কের তকমা প্রাপ্ত। সুপ্রিম কোর্টের মদে নিষেধাজ্ঞার ফলে বন্ধ হয়ে গিয়েছিল শহরের বেশ কিছু নাম করা হোটেল। কর্নাটক দিয়ে যাওয়া জাতীয় সড়কের ৭০০ কিমি রাস্তা থেকে জাতীয় সড়কের তকমা তুলে দেওয়ার জন্য কেন্দ্রের কাছে আবেদন করেছিল কর্নাটক সরকার।

প্রসঙ্গত রাজস্ব ক্ষতি এড়ানোর জন্য সুপ্রিম কোর্টের মদ বন্ধের নির্দেশিকার পরেই তড়িঘড়ি বিজ্ঞপ্তি জারি করে জাতীয় সড়কের তকমা তুলে নিয়েছিল মহারাষ্ট্র, হিমাচল প্রদেশ, উত্তরাখণ্ড এবং রাজস্থানের মতো রাজ্যগুলি।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here